উপহার হিসেবে কেমন বই

Books gift

জন্মদিন বা অন্য কোন অনুষ্ঠানে সবচেয়ে সহজ এবং সেরা উপহার হল বই। তবে হাজার হাজার বইয়ের ভিড়ে আসলে কোন বইটি দিলে শিশুরা খুশি হবে বা পড়ে আনন্দ পাবে সেটা নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে থাকেন অনেকেই।

সাধারণত ওয়াল্ট ডিজনির রুপকথার বইগুলো বা হ্যারি পটার সিরিজ- অনেক বেশি জনপ্রিয় হওয়ায় কমবেশি সব বাচ্চারই সংগ্রহে থাকে এগুলো। আর বাংলাদেশশের শিশুদের কাছে জাফর ইকবাল বা হুমায়ূন আহমেদের বইয়ের ঝুড়ি থাকবেনা তা হতেই পারেনা!

Safe Internet

তাই এসব বইয়ের বাইরে একটু ব্যতিক্রমী কোন বই দিয়ে তাদের জন্য সাজাতে পারেন আপনার উপহারের ডালা চলুন তা জেনে নেয়া যাক-

অ্যাডভেঞ্চার ও রহস্যপ্রেমী শিশুদের জন্য-
আপনি যদি আগে থেকেই শিশুটির পছন্দ জেনে থাকেন তবে আপনার জন্য উপহারের জন্য বই বাছাই করতে সুবিধা হবে। যেসব শিশু রহস্য পছন্দ করে তাদের জন্য সেবা প্রকাশনীর কিশোর ক্ল্যাসিকের বইয়ের থেকে ভাল আর কি হতে পারে! সেবার ‘তিন গোয়েন্দা’ হল সব শিশুদের কৈশোরকালের সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু।

বলা যেতে পারে, রকিব হাসান আর শামসুদ্দিন নওয়াবের লেখা এই বইগুলই শিশুদের প্রথমবারের মত রহস্য আর অ্যাডভেঞ্চারের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। এছাড়া বিভিন্ন বিখ্যাত ক্ল্যাসিক সিরিজের সেবা প্রকাশনীর অনুবাদ করা বইগুলো শিশুদের জন্য আনন্দের খনি বলা যেতে পারে। ট্রেজার আইল্যান্ড,

বাউন্টিতে বিদ্রোহ অথবা বন্যপ্রাণী শিকারের ঘটনা নিয়ে অসংখ্য বই রয়েছে এই প্রকাশনীর প্রকাশ তালিকায়।

এরপরই যে বইগুলো শিশুদের মাঝে রহস্য আর অ্যাডভেঞ্চারের প্রতি ভালবাসা আরো পাকাপোক্ত করতে সক্ষম সেগুলো হল সত্যজিৎ রায়ের ‘ফেলুদাসমগ্র’ আর ‘শঙ্কুসমগ্র ’। বাংলা সাহিত্যের সমৃদ্ধ জগতের সাথে পরিচয়ের হাতেখড়ি করাতে এগুলোই হতে পারে সেরা উপহার।

এছাড়া সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের কাকাবাবু সিরিজও চমৎকার উপহার। তাছাড়া সাঈফ আবেদীনের ‘নুহাশ এবং তার বিচ্ছুবাহিনী’ বইটিরও পাতায় পাতায় শিশুদের জন্য অপেক্ষা করছে অদ্ভুত রহস্য আর বিপুল অ্যাডভেঞ্চার।

আর শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের ‘গোয়েন্দা বরদাচরণ সমগ্র ও অন্যান্য’ এবং ষষ্ঠীপদ চট্টোপাধ্যায়ের ‘সেরা গোয়েন্দা পঁচিশ’-ও হতে পারে অত্যন্ত লোভনীয় উপহার।

Book gift

হাসতে ও হাসাতে যারা ভালবাসে
কিছু শিশু আছে যারা হাস্য-রস্যাত্মক বই পড়তে ভালবাসে। তাদের জন্য সাহিত্য বিকাশ থেকে প্রকাশিত মোঃ আশিকুর রহমানের সম্পাদিত ‘রসিক রাজ গোপাল ভাঁড় ’ অথবা সালাউদ্দিন বইঘর থেকে প্রকাশিত সাদিকুর রহমান সোহাগের সম্পাদিত ‘গোপাল ভাঁড়ের হাসির গল্প’ হতে পারে একটি সুন্দর উপহার।
গোপাল ভাঁড়ের নানা মন মাতানো হাসির গল্প নিয়ে সাজানো হয়েছে বইগুলো।

সব শিশুরই পড়া উচিত
শিশুদের জন্য একটা উৎকৃষ্ট বই হতে পারে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ‘একাত্তরের দিনগুলি’। ৭১-এ যুদ্ধে যাওয়া তাঁর মুক্তিযোদ্ধা ছেলের আর ফিরে না আসার মর্মান্তিক সত্য ঘটনা যা ডায়েরি হিসেবে জাহানারা ইমাম লিখেছিলেন তাই পরবর্তীতে প্রকাশিত হয়েছিল বই হিসেবে।

একাত্তরের যুদ্ধ সম্পর্কিত আরেকটি সুন্দর বই হল ‘একাত্তরের চিঠি ’। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বিভিন্ন যােদ্ধাদের স্বজনদের কাছে লেখা ৮২টি চিঠির সংকলন এই বই। প্রথমা প্রকাশ থেকে প্রকাশ করা হয়েছিলো বইটি।

এছাড়া যারা বিজ্ঞান বিষয়ক তথ্য জানতে আগ্রহী তাদের দিতে পারেন প্রদীপ দেবের অনুবাদ করা ইয়া পেরেলম্যানের ‘পদার্থবিদ্যার মজার কথা’ বইটি।

নিতান্তই সাহিত্যপ্রেমী যারা
উপন্যাস বা গল্প যারা পড়তে ভালবাসে যারা তাদের উপহার দেবার জন্য আছে  মনে গভীর দাগ ফেলার মত কিছু বই। বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘আম আঁটির ভেঁপু’ তেমনই একটি বই। বইটি আসলে লেখকের আরেকটি উপন্যাস পথের পাঁচালীর ক্ষুদে সংস্করণ, যা তিনি বের করেছিলেন কিশোরবয়সীদের জন্য।

দুই ভাইবোন অপু-দুর্গার বিভিন্ন দুষ্টুমি আর হৃদয়-বিদারক ঘটনার মধ্য দিয়ে এগিয়ে গিয়েছে উপন্যাসের কাহিনী। যা আপনাকে একই সাথে হাসাবে আবার আপনার চোখ ভিজিয়ে দেবে জলে। এক কথায়, বইটি পড়ে এক অদ্ভুত ভাললাগা কাজ করবে ভেতরে।

এছাড়া শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের ‘কিশোর উপন্যাস সমগ্র’, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘নির্বাচিত কিশোর সংকলন ’ও উপেন্দ্রকিশোর রায় চৌধুরীর ‘নির্বাচিত কিশোর সংকলন ’-এই বইগুলোও রাখতে পারেন আপনার উপহারের তালিকায়।

‘সাহিত্যে নোবেল বিজয়ীদের এক ডজন গল্প’ নামে মিজান রহমানের সংকলনটিও আপনার উপহারের ডালাটি সমৃদ্ধই করবে।

ছড়া-কবিতায় আনন্দ যাদের
সাহিত্যের এ শাখায় যাদের আগ্রহ তাদের জন্যই রচিত সুকুমার রায়ের ‘সমগ্র শিশু সাহিত্য’। এ বইটি শিশুদের জন্য একটি অনবদ্য উপহার। এছাড়া উপহার দিতে পারেন শামসুর রহমানের ছড়া-কবিতার বই ‘এলাটিং-বেলাটিং’, ‘ছড়াসমগ্র’, ‘নির্বাচিত ছড়া-কবিতা’, স্মৃতির শহর অথবা ‘আমের কুঁড়ি জামের কুঁড়ি’।

আশা করি এই তালিকা থেকে আপনি খুঁজে পাবেন উপহার দেবার জন্য আপনার পছন্দমত বইটি। তবে যে বইই দিন না কেনো তা যদি একটি সুন্দর রঙিন মোড়কে মুড়িয়ে তুলে দিন শিশুটির হাতে তুলে দেন তবে তার আনন্দের মাত্রা বেড়ে যাবে আরো কয়েকগুণ। মনে রাখবেন বই মানুষের সারা জীবনে সঙ্গী।