এশিয়া কাপের সেরা একাদশ

Soumya Sarkar

ক্রিকেটবিষয়ক শীর্ষ সংবাদদাতা ইএসপিএন ক্রিকইনফো প্রকাশ করেছে এশিয়া কাপের সেরা একাদশ। এ একাদশে বাংলাদেশ থেকে জায়গা পেয়েছেন ৪ জন- সৌম্য সরকার, সাব্বির আহমেদ, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং আল-আমিন হোসেন। সেই সাথে ভারতের ৪ জন, পাকিস্তানের ২ জন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের ১ জন ক্রিকেটার স্থান পেয়েছেন এই সেরা একাদশে। তবে তালিকায় ঠাই মেলেনি কোন শ্রীলংকান ক্রিকেটারের।

রোহিত শর্মা

ClassTune

এশিয়া কাপে ১৩৪ রান করা ভারতের রোহিত শর্মা যেকোনো একাদশেই ওপেনিং করার যোগ্যতা রাখে। তার অভিজ্ঞতা এবং স্ট্রাইক রেটের কারণে তিনি এই দলে জায়গা পেয়েছেন।

সৌম্য সরকার

প্রথম দিকে খুব বেশি রান না পেলেও টুর্নামেন্টের শেষের দিকে জ্বলে উঠেছিলেন সৌম্য। তার মারমুখী এবং স্টাইলিশ ব্যাটিং তাকে এই জ্বলে জায়গা পেতে সাহায্য করেছে।

ভিরাট কোহলি

বর্তমানে ভারতের সেরা ব্যাটসম্যান কোহলি এশিয়া কাপেও তার ভাল খেলার ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন। তাই তিনি রয়েছেন এই দলে।

সাব্বির রহমান

এবারের এশিয়া কাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক (১৭৬ রান) এবং ম্যান অফ দ্য সিরিজ সাব্বির নিঃসন্দেহে এশিয়ার সেরা একাদশে খেলার যোগ্যতা রাখে। শ্রীলংকার বিপক্ষে তার ম্যাচসেরা ৫৪ বলে ৮০ রানের ইনিংস সবার নজর কেড়েছে।

শোয়েব মালিক

মিডল অর্ডারে ধরে খেলার জন্য শোয়েব মালিকের জুড়ি নেই। তার সিঙ্গেল নেয়া এবং চাপ নিয়ে খেলতে পারার কারণে তাকে এই দলে স্থান দেয়া হয়েছে।

মাহমুদুল্লাহ

১২১ গড় নিয়ে ১২১ রান করা মাহমুদুল্লাহ নিজেকে নিয়ে গিয়েছেন এবার অন্য উচ্চতায়। টুর্নামেন্টের সেরা এই ফিনিশার সবগুলো ম্যাচেই ছিলেন অপরাজিত। ইনিংসের শেষের দিকে নেমে দুর্দান্ত হার্ডহিটিং পারফর্মেন্সের কারণে সবার প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি। তাকে তাই স্থান দেয়া হয়েছে ৬ নম্বরে।

ধোনি

খুব বেশি খেলার সুযোগ না পেলেও ফাইনাল ম্যাচের ফিনিশিং এবং ভালো অধিনায়কত্বের কারণে তাকে এশিয়ার সেরা একাদশের অধিনায়ক ও উইকেট কিপারের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

আমজাদ জাভেদ

১২ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হয়েছেন আরব আমিরাতের এই বোলার।

মোহাম্মদ আমির

পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে অসাধারণ পারফরমেন্স ছিল পাকিস্তানি এই বাঁহাতি পেসারের। তার সুয়িং, ইয়র্কার এবং ম্যাচ ঘুরিয়ে দেয়া পারফর্মেন্সই তাকে এই দলে জায়গা দিয়েছে।

আল-আমিন

টানা ৪ ম্যাচে নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট তুলে নিয়ে কীর্তি গড়েছেন আল-আমিন। তার দুর্দান্ত বোলিং এবং ২য় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের কারণে তিনি সহজেই এই দলে স্থান পেয়েছেন।

জাসপ্রিত বুমরাহ

নতুন হয়েও অপ্রত্যাশিত ভাবেই টুর্নামেন্টে বেশ ভালো বোলিং করেছে ভারতের বুমরাহ। তার বোলিং সহজেই বিপক্ষ দলকে কম রানে আটকে দিয়েছে।