এসব খেলে স্মৃতিশক্তি বাড়ে

meatless

আমাদের অনেকেরই স্মৃতিশক্তি একটু দুর্বল। কারো পড়লে মনে থাকে না। কেউ মানুষের নাম মনে রাখতে পারেন না। কারো বা সংখ্যায় লাগে গণ্ডগোল। দুর্বল স্মৃতিশক্তির কারণে এরকম অনেক ঘটনার মুখোমুখি হয় মানুষ। বয়স বাড়ার সাথে সাথে এ সমস্যা আরও বেড়ে যায়।

বিজ্ঞানীরা অনেকদিন ধরেই চেষ্টা করছেন কোন কোন উপাদানের কারণে মানুষের স্মৃতিশক্তি ভালো হতে পারে সেটা জানতে। বিজ্ঞানীদের বের করা এমনই ৮টি খাবারের নাম উল্লেখ করা হল যা মানুষের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

Safe Internet

স্যামন মাছ
স্যামন মাছকে ‘ব্রেইন ফুড’ বলা হয়ে থাকে। এতে ওমেগা-৩ নামক ফ্যাটি এসিড থাকে যা স্মৃতিভ্রংশ হওয়া রোধ করে। শিকাগোতে ৬ হাজার লোকের উপর ৪ বছর ধরে গবেষণা চালিয়ে দেখা যায়, যারা নিয়মিত মাছ খায় তাদের ভুলে যাওয়ার পরিমাণ যারা মাছ খায় না তাদের চেয়ে ১২ শতাংশ কম। ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ মাছ সপ্তাহে ৪ আউন্স খেলে স্মৃতিশক্তি অনেক ভালো থাকে।

কারি
ভারতীয় কায়দায় রান্না করা কারি বা ঝোলজাতীয় তরকারি মানুষের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সহায়ক বলে গবেষণায় দেখা গেছে। হলুদ এবং অন্যান্য মসলায় কারক্যুমিন নামক একধরণের উপাদান থাকে যা এক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা রাখে। ক্যান্সার এবং হৃদরোগ প্রতিরোধেও ঝোল জাতীয় তরকারি অনেক উপকারী।

ব্লুবেরি ও আঙুর
ইউনিভার্সিটি অফ সিনসিনাটির প্রফেসর রবার্ট ক্রিকোরিয়ান একটি গবেষণার মাধ্যমে জানান, টানা দুই মাস প্রতিদিন একগ্লাস করে ব্লুবেরি জুস পান করলে তার স্মৃতিশক্তি উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পায়। আঙুরের জুসের ক্ষেত্রেও একই ফলাফল দেখতে পাওয়া গেছে।

বীট
বীট গাজরের মত মূলবিশিষ্ট একধরণের চারাগাছ। এতে প্রচুর পরিমাণে নাইট্রেট থাকে। নাইট্রেট হচ্ছে নাইট্রিক অক্সাইডের একটি রূপ যা কিনা আমাদের রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি করে। ফলে আমাদের মস্তিষ্কে রক্তপ্রবাহ এবং অক্সিজেন প্রবাহ বৃদ্ধি পায় যা আমাদের মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে।

শাকসবজি
পালং শাকের মত বিভিন্ন সবুজ শাকসবজিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফোলেট থাকে। গবেষণা বলে, ফোলেটসমৃদ্ধ খাবার গ্রহণের ফলে আমাদের স্মৃতিধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

চুইংগাম
আশ্চর্যজনক হলেও এটা সত্যি। ২০১৩ সালে কার্ডিফ ইউনিভার্সিটির কয়েকজন গবেষক দুই ভাগে বিভক্ত কিছু মানুষের উপর একটি গবেষণা চালান। তাদের একদলের মুখে চুইংগাম ছিল এবং অন্যদলের মুখে চুইংগাম ছিল না। তাদের ৩০ মিনিট ধরে কিছু সংখ্যা শোনানো হয়।

যখন তাদের সেই সংখ্যাগুলো পুনরাবৃত্তি করতে বলা হয় তখন দেখা যায়, চুইংগাম চাবানো দলের উত্তরগুলো বেশি সঠিক। এ থেকে ধারণা করা হয়, চুইংগাম চাবানোর ফলে আমাদের মনোযোগ বৃদ্ধি পায়।

কফি
অস্ট্রিয়ার ইন্সব্রুক ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক দাবি করেছেন, দুই মগ কফিতে যে পরিমাণ ক্যাফেইন থাকে তা মানুষের মনে রাখার ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। আরেক গবেষণা থেকে জানা যায়, ৬৫ বছরের বেশি বয়সী নারী যারা দিনে কমপক্ষে ৩ কাপ কফি খান তাদের স্মৃতিশক্তি তুলনামূলক বেশি প্রখর।

চকোলেট
কফির বদলে হট চকোলেটও আমাদের স্মৃতিশক্তির জন্য উপকার বয়ে আনতে পারে। ২০১৩ সালের একটি গবেষণা বলছে, ৭৩ বছরের বেশি বয়সের মানুষেরা যদি দিনে দুই কাপ কোকোয়া টানা ১ মাস খায় তাহলে তাদের স্মৃতিশক্তি বেড়ে যায়। একই সাথে কমপক্ষে ৭০% কোকোয়া সমৃদ্ধ একটি ডার্ক চকোলেট বার খেলে তা ফ্লাভোনয়েড এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের জোগান দেয় যা আমাদের মস্তিষ্ককে সুস্থ রাখে।