চাঁদে মহাকাশযান অবতরণের প্রতিযোগিতা

google lunar xprize

চাঁদে মানুষ পদার্পণের অর্ধশত বার্ষিকী পূর্ণ হতে যাচ্ছে। চাঁদ ও মহাকাশ নিয়ে অসংখ্য গবেষণা ও প্রকল্প পরিচালিত হচ্ছে। আর এ কার্যক্রমকে আরও বেগবান করতে গুগল লুনার এক্সপ্রাইজ চালু করেছিল এক প্রতিযোগিতার।

২০০৭ সালে শুরু হওয়া এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে এক্সপ্রাইজ আর পৃষ্ঠপোষকতা করছে গুগল।

ClassTune

এই প্রতিযোগিতায় একটি মহাকাশযানকে চাঁদের পিঠে অবতরণ করাতে হবে, সেটিকে যেকোনো দিকে ৫০০ মিটার পর্যন্ত চালাতে হবে এবং হাই-ডেফিনেশন ভিডিও ফুটেজ প্রেরণ করতে হবে। প্রথম যেই দল সফলভাবে এই যাত্রা সম্পন্ন করতে পারবে তারা পাবে ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আর ২য় দল পাবে ৫ মিলিয়ন।

এ বছরের শুরুতে ২টি দল এগিয়ে ছিল এ প্রতিযোগিতায়। যুক্তরাষ্ট্রের মুন একপ্রেস ও ইজরাইলের স্পেসআইএল। ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে স্পেসআইএল ভেরিফাইড লঞ্চ কন্ট্রাক্ট স্বাক্ষর করে স্পেসএক্স-এর সাথে এবং মুন এক্সপ্রেস করে রকেট ল্যাব-এর সাথে। ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত তারা সময় পাবে এ যাত্রা সম্পন্ন করার জন্য। আগামী বছরের যেকোনো সময়েই মহাকাশযান উড্ডয়ন করানো হতে পারে।

তবে চাঁদের মাটিতে চলার বদলে দুটি দলই এমন মহাকাশযান তৈরি করছে যেটি চাঁদের বুকে লাফিয়ে লাফিয়ে চলতে পারবে। দুটি দলই দাবি করছে তাদের মহাকাশযান উন্নত প্রযুক্তিতে তৈরি এবং সফলভাবে তার যাত্রা সম্পন্ন করতে পারবে। তবে সত্যিই তাদের যাত্রা কতটুকু সফল হবে সেটা জানার জন্য আমাদের আগামী বছরের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।