প্রতিদিন প্লেনে চড়ে অফিসে যান তিনি

4195
curt-von-badinski

প্রতিদিন একটি প্লেন, দুটি গাড়িতে করে ৭৭০ মাইল অতিক্রম করে অফিসে যান ও ফিরে আসেন। এতে তার সময় লাগে প্রায় ৬ ঘন্টা। এই দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়েও তিনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন।

আর এই বিশেষ ব্যক্তির নাম কার্ট ভন ব্যনডিন্সকি। পেশায় তিনি যন্ত্র প্রকৌশলী। সান ফ্রান্সিসকোর এক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সহ-উদ্যোক্তাও তিনি। আবাসস্থল লস অ্যাঞ্জেলস থেকে সান ফ্রান্সিসকোতে নিজের অফিসে যেতে দীর্ঘ যাত্রার অধিকাংশ সময় লাগে প্লেনে।

সপ্তাহের পাঁচদিনই ব্যনডিন্সকি ভোর ৫টায় ঘুম থেকে উঠেন। এরপর ১৫ মিনিট গাড়ি চালিয়ে বব হোপ বারব্যাংক বিমানবন্দরে যান। সেখান থেকে ৩৬৫ মাইল এক ইঞ্জিনবিশিষ্ঠ প্লেনে আকাশপথে পাড়ি দিয়ে অকল্যান্ডে যান, যাতে সময় লাগে প্রায় ৯০ মিনিট।

ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক এয়ারলাইন সার্ফ এয়ারের বহির্গমন ভবনের পাশেই অবতরণ করেন তিনি। উড়োজাহাজে করে যাতায়াতের জন্য সার্ফ এয়ারকে প্রতি মাসে ২ হাজার ৩০০ ডলার দেন তিনি। এরপর ওকল্যান্ড বিমানবন্দর থেকে নিজের জন্য অপেক্ষারত গাড়িতে করে সান ফ্রান্সিসকোতে যান তিনি।

বৈরি আবহাওয়া কিংবা কুয়াশাচ্ছন্ন ও ঠান্ডা আবহাওয়াকেও তোয়াক্কা না করে প্রতিদিন ৭৭০ মাইল ভ্রমণ সাহসের বিষয়ই বটে! পাশাপাশি বিমানবন্দরের নিরাপত্তা কার্যক্রম শেষ করতে হয়। যদিও প্রতিদিন ভ্রমণের কারণে নিরাপত্তা রক্ষীরা এখন আর তাকে আটকান না।

অফিসে প্রায় সাড়ে আট ঘন্টা কাজ করেন তিনি। এরপর আবার সেই ভ্রমণ। বিকাল অফিস থেকে বের হয়ে বাসায় পৌছান রাত ৯টার দিকে। দীর্ঘ ভ্রমণে ক্লান্ত নন ব্যনডিন্সকি। তিনি এটি উপভোগ করেন। প্রতিদিন ছয় ঘন্টা ভ্রমণ তার আত্মবিশ্বাসকে বাড়িয়ে দিয়েছে বলেও জানান তিনি।

বিবিসি অবলম্বনে