মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসের সেরা প্রযুক্তিগুলো

577
Samsung Galaxy S9

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস, প্রযুক্তিবিশ্বের সবচেয়ে বড় মোবাইল প্রদর্শনী। তবে এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস আগের থেকে কিছুটা ভিন্ন।

স্যামসাং তাদের নতুন ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন গ্যালাক্সি এস৯ ও এস৯ প্লাস ঘোষণা করেছে। তবে অধিকাংশ ফোন নির্মাতারা সরে এসেছে। এলজি, মটোরোলা, হুয়াওয়ে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে অংশগ্রহণ করলেও তাদের কোনও ফ্ল্যাগশিপ ফোন উন্মোচন করা হয়নি।

ClassTune

নকিয়া ও সনি নতুন মোবাইল এনেছে তবে তার চেয়েও আলোচিত হয়েছে কম পরিচিত ব্র্যান্ড ভিভো ও এনার্জিজার।

চলুন দেখে নিই মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস ২০১৮ এর সেরা মোবাইল গ্যাজেটগুলো। এখানে বিশেষ কোনও ক্রম মানা হয়নি।

ভিভো অ্যাপেক্স
Vivo Apex
ভিভো অ্যাপেক্স এখনও একটি কল্পিত ডিভাইস, কিন্তু এটি ভবিষৎকে সামনে রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। বেজেলবিহীন স্ক্রিণসহ এর সেলফি ক্যামেরা, ডিসপ্লেতে ফিঙ্গারপ্রিন্টসহ নানা আকর্ষণীয় ও অত্যাধুনিক ফিচার থাকছে। প্রতিযোগিতামূলক বাজারে কিছু ক্ষেত্রে এগিয়ে থাকার যোগ্যতা দেখা যাচ্ছে এই ফোনটিতে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৯ ও এস৯ প্লাস
Samsung Galaxy S9-S9+
দেখতে এস৮ ও এস৮ প্লাসের মতো হলেও নতুন গ্যালাক্সি এস৯ ও এস৯ প্লাসের ভিতরে প্রায় সবকিছুতেই নতুনত্ব আনা হয়েছে। এর ক্যামেরাতে নতুনত্ব, বড় মডেলের সেকেন্ডারি ক্যামেরা রয়েছে। এর সেরা ফিচারের মধ্যে রয়েছে সেলফি থেকে ইমোজি তৈরি। পিছনে ফিঙ্গারপ্রিন্টকে ভালোভাবে অবস্থান দেয়া হয়েছে। স্পিকারে নতুন স্টেরিও এবং আগের থেকে বেশি জোরালো করা হয়েছে। এছাড়া রয়েছে সর্বশেষ প্রযুক্তির কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ চিপ ও হেডফোন জ্যাক।

সনি এক্সপেরিয়া এক্সজেড২
Sony Xperia XZ2
বিগত কয়েক বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো সনি কোনও ফ্ল্যাগশিপ ফোন এনেছে যা প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকতে সক্ষম হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এক্সপেরিয়া এক্সজেড২ এর পিছনে বাঁকানো ডিজাইন, ওয়্যারলেস চার্জিং, পিছনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, স্টেরিও স্পিকার ও উন্নত ফোরকে এইচডিআর ভিডিও ক্যাপচার সুবিধা আনা হয়েছে। এখন দেখার বিষয় ক্রমান্বয়ে পিছিয়ে পড়া সনি আবারও সামনে চলে আসতে পারে কিনা।

নকিয়া ৮১১০ ফোরজি
Nokia 8110 4G
গতবছর নকিয়া তাদের বিখ্যাত নকিয়া ৩৩১০ ফোনে আধুনিকায়নের মাধ্যমে বাজারে বেশ আলোড়ন তুলেছিলো। তারই ধারাবাহিকতায় এবার আরেকটি ক্ল্যাসিক ৮১১০ স্লাইডার ফোনের আধুনিক সংস্করণ আনছে। দ্য ম্যাট্রিক্স ফোন হিসেবে পরিচিত নতুন ৮১১৮ ফোরজিতে আগের বৈশিষ্ঠ্য রাখার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে আধুনিক ফিচারের সাথে সাথে এতে রয়েছে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট, যা ফোনটিতে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে।

নকিয়া ৮ সিরোকো
Nokia 8 Sirocco
সনি এক্সপেরিয়া এক্সজেড২ এর মতো নকিয়া ৮ সিরোকো হাই-এন্ড ডিভাইস। প্রায় ৯৫ শতাংশ গ্লাসের আধিক্য, সামনে ও পিছনে বাঁকানো গ্লাস এজ, স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ চিপ, ৬ গিগাবাইট র্যাম, ১২৮ গিগাবাইট মেমরি, পিওএলইডি ডিসপ্লে, ডুয়াল ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা, ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচার ফোনটিকে জনপ্রিয় করতে যথেষ্ঠ বলে মনে করা হচ্ছে।

এনার্জিজার পাওয়ার ম্যাক্স পি১৬কে প্রো
Energizer Power Max P16K Pro
অধিকাংশ ফোন একবার চার্জে সাধারণত একদিন থাকে। তবে এবার চার্জের ভোগান্তি কমে আসার সুযোগ তৈরি হয়েছে। স্মার্টফোনে ১৬,০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, অবিশ্বাস্য মনে হতে পারে। কিন্তু সেটিই বাস্তব করেছে এনার্জিজার। এক চার্জে পাঁচদিন পর্যন্ত চলবে এই ফোন।

হুয়াওয়ে মেটবুক এক্স প্রো
Huawei MateBook X Pro
প্রতিবছরই ফোনের বেজেলে পরিবর্তন আসছে, তাহলে ল্যাপটপে কেনো নয়? হুয়াওয়ের নতুন মেটবুক এক্স প্রো অ্যাপলের ম্যাকবুক প্রোর ক্লোন বলা যেতে পারে। এর ১৪ ইঞ্চি টাচস্ক্রিণ কিবোর্ডের সাথে মিশে যায়। বেজেল কমানোর জন্য ক্যামেরাকে লুকিয়ে রাখা হয়েছে কিবোর্ডে। উপরের ফাংশন সারিতে এটি রয়েছে। চাপ দিলেও ক্যামেরা বেরিয়ে আসবে। ফলে প্রাইভেসির জন্য এখন আর ওয়েবক্যামে প্লাস্টিক টেপ লাগিয়ে রাখার দরকার পড়বে না। ল্যাপটপটিতে রয়েছে অষ্টম জেনারেশনের ইন্টেল কোর আই৭ ৮৫৫৫ইউ প্রসেসর, এনভিডিয়া জেফোর্স এমএক্স১৫০ জিপিইউ, ১৬ গিগাবাইট র্যাম ও ৫১২ গিগাবাইট এসএসডি। ইউএসবি-সি পোর্ট এর পাশাপাশি এতে ফুল-সাইজের ইউএসবি পোর্টও রয়েছে।

স্যানডিস্ক ৪০০জিবি এ২ মাইক্রোএসডি কার্ড
SanDisk 400GB A2 microSD card
গতবছর ৪০০ গিগাবাইট মাইক্রোএসডি কার্ড আসলেও অধিক ট্রান্সফার গতি নিয়ে এসেছে নতুন এ২ মাইক্রোএসডি কার্ডটি। এর রিড স্পিড ১৬০ এমবি/সেকেন্ড এবং রাইটিং স্পিড ৯০ এমবি/সেকেন্ড যা আগের ইউএইচএস-আই এর তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি দ্রুতগতির। ফলে এটি ক্যামেরা, ফোন কিংবা কম্পিউটারে দ্রুতগতির অভিজ্ঞতা দেবে ব্যবহারকারীকে।