বিশ্বকাপের ভেন্যু পরিচিতি : কাজান এরিনা

Kazan Arena
ছবি: সংগৃহীত

কাজান হলো রাশিয়ার তাতারস্তান প্রজাতন্ত্রের রাজধানী ও বৃহত্তম শহর। এটি রাশিয়ার ৬ষ্ঠ সর্বাধিক জনবহুল শহর, জনসংখ্যা প্রায় ১১ লক্ষ ৪৩ হাজার। ২০০৯ সালে কাজানকে রাশিয়ার তৃতীয় রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। একইসাথে এটিকে দেশটির ক্রীড়া রাজধানী উপাধি দেয়া হয়।

কাজান শহরটি ভোলগা নদী এবং কাজানকা নদীর সঙ্গমস্থলে রাশিয়ার ইউরোপীয় অংশে অবস্থিত। কাজানের নগরদুর্গ বা ক্রেমলিনটি একটি বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান। প্রতিবছর প্রায় ২০ লাখ পর্যটক কাজানে ভ্রমণ করতে যান। পর্যটকদের আকর্ষণস্থলের মধ্যে কাজান নগরদুর্গসহ শহরের হোটেল-বিনোদন ভবন ও স্থাপনাসমূহ।

Safe Internet

এই কাজান শহরেই বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে তৈরি করা হয়েছে একটি স্টেডিয়াম। স্থানের নামের সাথে মিলিয়ে স্টেডিয়ামটির নাম দেয়া হয়েছে কাজান এরিনা। চলুন জেনে নিই স্টেডিয়ামটি সম্পর্কে।

২০১০ সালে স্টেডিয়ামটির নির্মাণ কাজ শুরু হয় এবং ২০১৩ সালের জুলাই মাসে স্টেডিয়ামটি উদ্বোধন করা হয়। স্টেডিয়ামটি তৈরিতে খরচ হয়েছে ৪৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। স্টেডিয়ামের নকশায় প্রাধাণ্য পেয়েছে স্থানীয় ঐতিহ্য ও স্থাপনাসমূহ। এর নকশা করেছেন স্থপতি ডামন লেভেলে। স্টেডিয়ামটির ধারণসংখ্যা ৪৫ হাজার ৩৭৯ জন।

kazan-arena
ছবি: সংগৃহীত

উদ্বোধন হওয়ার পর এই স্টেডিয়ামে ইউনিভার্সাইড ফুটবল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এর দুই বছর পর এখানে আয়োজন করা হয় বিশ্ব একুয়াটিক্স চ্যাম্পিয়নশীপ। আর ২০১৭ সালে ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের ৪টি ম্যাচও এখানে আয়োজন করা হয়। তিনটি গ্রুপ পর্বের ম্যাচ ছাড়াও এখানে আয়োজন করা হয় একটি সেমিফাইনাল।

এবারের বিশ্বকাপে মোট ৬টি ম্যাচ এই স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। ১৬ জুন ফ্রান্স ও অস্ট্রেলিয়া, ২০ জুন ইরান ও স্পেন, ২৪ জুন পোল্যান্ড ও কলম্বিয়া ও ২৭ জুন কোরিয়া ও জার্মানির মধ্যে খেলা অনুষ্ঠিত হবে। ৩০ জুন নক আউট পর্বের একটি খেলাও হবে। সর্বশেষ ৬ জুন কোয়ার্টার ফাইনালের সাক্ষী হবে কাজান এরিনা।