বিষাক্ত বাগান : যেখানে গাছের ঘ্রাণ নেয়াও নিষেধ

poison garden

বিভিন্ন ধরণের গাছ ও ফুলের বাগানে যাবেন অথচ ঘ্রাণ নিবেন না, তা কি হয়? কিন্তু ইংল্যান্ডে এমন একটি বাগান আছে যেখানে আপনি গাছ অথবা ফুলের ঘ্রাণ নিতে পারবেন না, ধরতে পারবেন না কিংবা খেতেও পারবেন না।

ইংল্যান্ডে বোটানিক্যাল গার্ডেনের মধ্যে অন্যতম আলনউইক ক্যাসেল। ১২ একর বাগানের একটি অংশ জুড়ে রয়েছে বিষাক্ত গাছের সমারোহ, যা ‘পয়জন গার্ডেন’ নামে অভিহিত। এই বাগানের দরজাতেই সাবধানবানী হিসেবে লেখা আছে ‘এখানকার উদ্ভিদ আপনাকে মেরে ফেলতে পারে’।

Safe Internet

cannabis poison garden

বাগানটিতে শতাধিক বিষপূর্ণ, মাদক, চেতনানাশক উদ্ভিদ রয়েছে। এদের মধ্যে বেলাডোনা, পপি, হেমলক, ক্যানাবিসসহ কোকো উল্লেখযোগ্য। আর তাই গাইড ছাড়া এই বাগানে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হয়না। দর্শনার্থীদেরকে আগে থেকেই এসব উদ্ভিদের ঘ্রাণ নেয়া, ধরা অথবা খাওয়া থেকে কঠোরভাবে নিষেধ করা হয়। তারপরেও অনেক সময় বাগানটিতে হাটতে হাটতে ঘ্রাণ নেয়ার কারণেও অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এমনকি মারা যাওয়ার ঘটনাও রয়েছে এই বাগানে।

বাগানটির অধিকাংশ গাছই বিশেষ জাল দিয়ে ঘেরা থাকে যাতে কেউ ভুলেও হাত না দিতে পারে। এছাড়া এগুলো অনেক দামী হওয়ায় কঠোর পাহারা থাকে।

১৯৯৫ সালে জেন পার্সি নামে এক মহিলা তার স্বামীর কাছ থেকে তাদের অব্যবহৃত জায়গায় কিছু করার উৎসাহ পান। বাগান করতে চাইলেও তিনি ভিন্ন কিছু করার পরিকল্পনা করেন। ইটালির মেডিসি পয়জন গার্ডেন দেখে তিনি একই ধরণের বাগান করার কাজে নেমে পড়েন।

poison garden

এই বাগানে ব্রাজিলের ব্রাগমানসিয়া নামের বিষাক্ত উদ্ভিদ রয়েছে যা প্যারালাইসিস ও মৃত্যুর কারণ হতে পারে। এছাড়া রয়েছে লওরেলস যার ঘ্রাণ মানুষকে অজ্ঞান করে ফেলে।