​আসছে কিলার রোবট : প্রতিবাদ এখনই

কিংবদন্তী পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং ও অ্যাপেলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ ওজনিয়াকসহ ১ হাজারেরও বেশি বিজ্ঞানী, দার্শনিক এবং প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মঙ্গলবার একটি খােলা চিঠিতে স্বাক্ষর করেছেন।

আন্তর্জাতিক অস্ত্র প্রতিযোগিতায় নতুন সংযোজন হিসেবে আগত ‘কিলার রোবট’ বা সশস্ত্র আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স-এর বিরুদ্ধে তাদের এই পদক্ষেপ।

এই প্রযুক্তির প্রবক্তারা মনে করেন, যুদ্ধক্ষেত্রে এই ধরণের প্রযুক্তি বা রোবটের ব্যবহার মানুষের নিহত বা আহত হবার ঝুঁকি বহুলাংশে কমিয়ে দেবে।

কিন্তু এ ধরণের অস্ত্র যদি কোন একনায়ক বা অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ীর হাতে পড়ে তাহলে তা মারাত্মক ক্ষতি বয়ে আনতে পারে। এসব রোবটের সাহায্যে যে শুধু বড় ধরণের হত্যাকাণ্ড ঘটানোই সম্ভব তা নয়, বলা হচ্ছে এগুলোর দ্বারা পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করাও সহজতর হবে।

কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে, নতুন এই উদ্ভাবন আমাদের বর্তমান বিশ্বের অস্ত্র প্রতিযোগিতাকে থামাতে সাহায্য করবে নাকি নতুন করে আরো উস্কে দিবে?

বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দিয়ে এই চিঠিতে বলেন, ‘এটা সময়ের ব্যাপার মাত্র যে এই অস্ত্র কালোবাজারে সয়লাব হয়ে যাবে, সন্ত্রাসীদের হাতে হাতে পৌঁছাবে রাষ্ট্রের অনেক ক্ষেত্রেই এটা অবৈধভাবে ব্যবহৃত হবে’।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, ‘যুদ্ধক্ষেত্রকে আরও নিরাপদ করতে, বিশেষ করে যারা সাধারণ মানুষ রয়েছে তাদের জন্য, অনেক ধরণের পন্থা রয়েছে। নতুন কোন বিধ্বংসী প্রযুক্তি ব্যবহার করলে এই ভয়াবহতা বাড়বে বৈ কমবে না’।

পেপাল-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং টেসলা মোটরসের সিইও এলোন মাস্ক তার এক টুইটারবার্তার মাধ্যমে এই প্রযুক্তির বিরুদ্ধে সবাইকে এই উন্মুক্ত চিঠিতে স্বাক্ষর করার জন্য জনসাধারণের কাছে আবেদন জানান।