বৃষ্টিহীন রঙধনু !!!

rainbow_1

 

রংধনু দেখার জন্যে আর বৃষ্টির দিনের অপেক্ষা করতে হবে না !! এখন ঘরে বসেই রংধনুর সৌন্দর্য দেখা সম্ভব…

ClassTune

যা যা লাগবেঃ

  • পাঁচটি স্বচ্ছ গ্লাস
  • লবণ
  • লাল, সবুজ, হলুদ ও নীল রঙ  
  • ১টি টেবিল চামচ
  • পানি 

যা করতে হবেঃ

  • প্রথমে গ্লাসগুলোতে লবণ নিতে হবে
  • মনে রাখতে হবে, ১ম গ্লাসে ১ টেবিল চামচ, ২য় গ্লাসে ২ টেবিল চামচ, ৩য় গ্লাসে ৩ টেবিল চামচ এবং ৪র্থ গ্লাসে ৪ টেবিল চামচ লবণ নিতে হবে
  • ৫ম গ্লাসটি খালি থাকবে

  • এবার, প্রতিটি গ্লাসে ৩/৪ টেবিল চামচ পানি নিতে হবে
  • এখন, ১ম গ্লাসে ২/৩ ফোঁটা লাল রঙ, ২য় গ্লাসে একই পরিমান হলুদ রঙ, ৩য় গ্লাসে সবুজ এবং ৪র্থ গ্লাসে নীল রঙ মিশাবো
  • চামচ দিয়ে প্রতিটি গ্লাসের দ্রবণগুলো ভালোমত নাড়তে হবে
  • এবার নীল রঙ যুক্ত গ্লাসের কিছু পরিমান দ্রবন ৫ম গ্লাসটিতে নেই, তারপর আস্তে আস্তে নীল রঙের উপর সবুজ রঙের কিছু দ্রবন নেই।
  • একইভাবে সবুজের উপর হলুদ এবং সবশেষে লাল রঙের দ্রবন যোগ করলেই হয়ে যাবে ক্ষুদ্রকায় গ্লাসের রঙধনু।

​ 

এই রঙধনু তৈরিতে কয়েক রঙের পানি একসাথে কেন ব্যবহার করা হলো না? তার কারণ হলো, পানিতে আলাদা আলাদা করে সাতটা রঙ নিলে একসাথে মেশানোর পর পুরো জিনিসটাই কালো রঙের হয়ে যাবে। এটা একেবারে সহজ একটা ব্যাপার, সবাই সেটা জানে। কিন্তু এখানে আমরা কি করলাম? ভিন্ন ভিন্ন ঘনত্বের তরল ব্যবহার করলাম। ভিন্ন ভিন্ন ঘনত্ব এই জন্যই বললাম যে, একেক গ্লাসে ভিন্ন পরিমাণের লবণ মিশানো হয়েছে। ঘনত্বের এই ভিন্নতার কারণে একেক রঙ অন্য রঙের সাথে মিশে যায়নি।

তাই, ঘনত্বের এই ভিন্নতার কারণে গ্লাসের মধ্যে একেকটি রঙের আস্তর (Layer) অন্য রঙের আস্তর থেকে আলাদা ভাবে দেখা যাচ্ছে।