পরিসংখ্যানে বিশ্বকাপ : দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম নিউজিল্যান্ড

· ভেন্যু: ইডেন পার্ক, অকল্যান্ড(নিউজিল্যান্ড)  

ClassTune

· জয়ী দল: নিউজিল্যান্ড ৪ উইকেটে (ডাক-লুইস পদ্ধতিতে) দক্ষিণ আফ্রিকাকে পরাজিত করেছে।

· দলীয় স্কোর: দক্ষিণ আফ্রিকা ৪৩ ওভারে ২৮১/৫ (৪৩ ওভারের খেলা)
                    নিউজিল্যান্ড ৪২.৫ ওভারে ২৯৯/৬ (টার্গেট ৪৩ ওভারে ২৯৮ রান)

· ম্যান অব দি ম্যাচ: নিউজিল্যান্ডের গ্রান্ট ইলিয়ট (৭৩ বলে ৮৪ রান)

· ম্যাচের সেরা ব্যাটসম্যান: নিউজিল্যান্ডের গ্রান্ট ইলিয়ট (৭৩ বলে ৮৪ রান)

· ম্যাচের সেরা বোলার: দক্ষিণ আফ্রিকার মরনে মরকেল (৫৯ রানে ৩ উইকেট)

· সবচেয়ে বেশি বাউন্ডারি (চার) মেরেছেন: দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি ভিলিয়ার্স ও নিউজিল্যান্ডের ব্রেন্ডন ম্যাককালাম (৮টি)

· সবচেয়ে বেশি ওভার বাউন্ডারি (ছক্কা) মেরেছেন: নিউজিল্যান্ডের ব্রেন্ডন ম্যাককালাম (৪টি)

· ম্যাচের সেরা স্ট্রাইকরেট: দক্ষিণ আফ্রিকার ডেভিড মিলার (২৭২.২২)

· সর্বাধিক বল খেলেছেন: দক্ষিণ আফ্রিকার ফাফ ডু প্লেসিস (১০৭ বল)

· সেরা পার্টনারশিপ: দক্ষিণ আফ্রিকার ফাফ ডু প্লেসিস – এবি ডি ভিলিয়ার্স ( ৪র্থ উইকেট জুটিতে ৭৩ বলে ১০৩ রান)

· হাফসেঞ্চুরি সংখ্যা: দক্ষিণ আফ্রিকা ২টি। করেছেন ফাফ ডু প্লেসিস ও এবি ডি ভিলিয়ার্স।

                            নিউজিল্যান্ড ৩টি। করেছেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, গ্রান্ট ইলিয়ট ও কোরি অ্যান্ডারসন                 

· দ্রুততম হাফসেঞ্চুরি: নিউ জিল্যান্ডের ব্রেন্ডন ম্যাককালাম (২২ বলে)

· মোট বাউন্ডারি ও ওভার বাউন্ডারি সংখ্যা: দক্ষিণ আফ্রিকা (২৮টি চার ও ৬টি ছক্কা) ও নিউ জিল্যান্ড (৩১টি চার ও ১০টি ছক্কা)

· সবচেয়ে বেশি রান দিয়েছেন: দক্ষিণ আফ্রিকার ডেল স্টেইন (৮.৫ ওভারে ৭৬ রান)

· সবচেয়ে বেশি ইকোনমি রেট: নিউজিল্যান্ডের কোরি অ্যান্ডারসন (১২.০০)

· সবচেয়ে কম ইকোনমি রেট: দক্ষিণ আফ্রিকার ইমরান তাহির (৪.৪৪)

· সর্বাধিক ক্যাচ: নিউ জিল্যান্ডের লুক রঞ্চি (২টি)

· এক ওভারে বেশি রান দিয়েছেন: দক্ষিণ আফ্রিকার ডেল স্টেইন (২৫ রান)

· অতিরিক্ত রান:  
o   দক্ষিণ আফ্রিকা (বাই ১, ওয়াইড ১৩)

o   নিউজিল্যান্ড (বাই ৬, লেগবাই ২, ওয়াইড ৫)

অন্যরকম কিছু রেকর্ড:
বিশ্বকাপের ইতিহাসে ৭ বার সেমিফাইনাল খেলে প্রথমবারের মত ফাইনালে উঠল নিউ জিল্যান্ড। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা দুর্দান্ত শুরু করেও আবারও সেমিফাইনালে এসে খেই হারিয়ে ফেলল। ৪র্থ বারের মত ফাইনালের খুব কাছে এসে আবারও হেরে গিয়ে নিজেদের চোকার্স অপবাদ ঘোচাতে পারল না তারা।

এই ম্যাচটি নিউ জিল্যান্ডের মাটিতে ৩০০তম ওয়ানডে ম্যাচ।

বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে এটাই নিউ জিল্যান্ড দলের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড।

বিশ্বকাপে ৪র্থ বারের মত ২২ বলে বা এর চেয়ে কম বলে হাফ সেঞ্চুরি করলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম।

নাথান অ্যাস্টলের পর ২য় কিউই ব্যাটসম্যান হিসেবে দেশের মাটিতে ৩০০০ রান পূর্ণ করলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম।

এই বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ স্ট্রাইকরেট ১৯২.০০ নিয়ে সবার উপরে আছেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম।

২১টি উইকেট নিয়ে সবার উপরে আছেন বাঁহাতি কিউই পেসার ট্রেন্ট বোল্ট । নিউ জিল্যান্ডের পক্ষে এক বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশী উইকেট নেয়ার রেকর্ডও এখন তার দখলে।