আজব দ্বীপ : যেখানে ডলফিনের দাঁত হল মুদ্রা!

সলোমন দ্বীপের ডলফিনেরা রয়েছে এক আজব ঝুঁকিতে। প্রশান্ত মহাসাগরীয় এ দ্বীপটির বাসিন্দারা এখনো স্থানীয়ভাবে ডলফিনের দাঁতকে মুদ্রা হিসেবে ব্যবহার করে। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি যে এরকম আদিম ব্যবস্থা এখনকার দিনেও সেখানে চলে আসছে।

Royal Society Open Science জার্নালে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সলোমন দ্বীপপুঞ্জের ফানালেই নামক ছোট্ট একটি গ্রামের বাসিন্দারাই শুধুমাত্র ২০১৩ সালে মোট ১৬০০ ডলফিন হত্যা করেছে শুধুমাত্র তাদের মূল্যবান দাঁতের জন্য।

গবেষকরা জানান, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সেখানে ১ হাজার ৫০০টি pantropical spotted dolphins, ১৫৯টি spinner dolphin এবং ১৫টি 'bottlenose' dolphin হত্যা করা হয়েছে।

১৯৭৬ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত সারসংক্ষেপ করলে দেখা যায় শুধুমাত্র ফানালেই দ্বীপেই ১৫ হাজার ৪৫৪টি ডলফিন শিকার করা হয়েছে তাদের দাঁতকে মুদ্রা হিসেবে ব্যবহার করার জন্য। বিয়ের কনের জন্যও এই দাঁত  ‌ব্যবহার করা হয়ে থাকে। একজন কনের জন্য ১০টি ডলফিনের দাঁত অলংকার হিসেবে গণ্য করা হয়।

সলোমন দ্বীপের এই কাজ তাদের ঐতিহাসিক একটি চর্চা। তবে উনবিংশ শতকের মাঝামাঝি সেখানে খ্রিস্টধর্ম প্রচলিত হলে এটা বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু ১৯৪৮ সালের দিকে এই প্রথা আবার ফিরে আসে। পরিবেশবিদেরা অনেক চেষ্টা করলেও এটা এখনো বন্ধ করা যায়নি।

গবেষক জানান, ‘স্থানীয়ভাবে ডলফিনের দাঁতের দাম বেড়েই চলেছে ২০০৪ সালে একটি দাঁতের দাম ছিল ০.১৪ ইউএসডলার। সেটা ২০১৩ সাল নাগাদ হয়েছে ০.৭০ ইউএসডলার’।

যদিও সলোমন দ্বীপে ডলফিনের সংখ্যা প্রচুর হওয়ায় এরা এখনো বিলুপ্তির ঝুঁকিতে পড়েনি, কিন্তু এরকমটা বন্ধ করতে না পারলে শিগগিরিই এরা বিলুপ্তপ্রায় হয়ে পড়বে। আর শুধুমাত্র দাঁতের জন্য প্রাণী হতা করাটাকেও অবৈধ বলছে সকলে।

তবে প্রাণীদের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গ আগেও মুদ্রা হিসেবে ব্যবহার করা হত। মধ্যযুগে কাঠবিড়াল আর অন্যান্য প্রাণীর নরম পশমী চামড়া রাশিয়া, ফিনল্যান্ডে মুদ্রা হিসেবে ব্যবহার করা হত। এছাড়াও প্রাচীন যুগে মুদ্রা হিসেবে কড়ি বা খোলের প্রচলন ছিল বলে আমরা অনেকেই জানি।