ক্লিন শিটঃ ফুটবলে গোল না খাওয়ার কীর্তি

football clean sheet

গোলের খেলা ফুটবল। ৯০ মিনিটের এই যুদ্ধে বহুল প্রত্যাশিত এই গোলের জন্য লড়াই করে দু’দলের খেলোয়াড়রা। গোলের খেলা এই ফুটবলে আবার কোনো দলই গোলই দিতে পারেনা। গোল দিতে না পারার পেছনে নিজ দলের খেলোয়াড়দের বিশেষ করে স্ট্রাইকারদের ব্যর্থতা এবং প্রতিপক্ষের ডিফেন্স বা গোলকিপারের প্রাচীরসম প্রতিরোধ বড় ভূমিকা পালন করে।

পুরো ম্যাচে কোনো গোল হজম না করলেই গোলকিপারের খাতায় যোগ হয়ে যায় “One more clean sheet”। ফুটবল খেলা ব্যতীত আইস হকি, রাগবি, বেসবল খেলায় ক্লিন শিটকে “শাউট আউট” বলা হয়। গোলকিপার তথা পুরো দলের খাতায় কোনো গোল হজমের রেকর্ড উঠে না বলে এর নাম ক্লিন শীট (Clean Sheet)।

ফুটবলের ইতিহাসে এই পর্যন্ত জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ ক্লিন শিটের মালিকদের একটু দেখে নেয়া যাকঃ

১. ইকার ক্যাসিয়াস– স্পেন (৭৪ ক্লিন শীট)

২. ভ্যান ডার স্যার– নেদারল্যান্ডস (৭২ ক্লিন শীট)

৩. মোহাম্মদ আল ডেয়াইয়া– সৌদি আরব (৬৯ ক্লিন শিট)

৪. পিটার শিল্টন– ইংল্যান্ড (৬৬ ক্লিন শিট)

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ক্লিন শিটের মালিক হচ্ছে চেক প্রজাতন্ত্রের পিটার চেকের (১৭৪)। চেলসিতে ১৬২টি ও বর্তমান ক্লাব আর্সেনালে ১২টি ক্লিন শিট অর্জন করেছে পিটার চেক। ২০১৫-২০১৬ মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ক্লিন শিট হচ্ছে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ক্লাব লেস্টার সিটির গোলকিপার ক্যাসপার স্মাইকেলের (৩৩ ম্যাচে ১৪টি ক্লিন শিট)। বর্তমান মৌসুমে স্প্যানিশ প্রিমিয়ার লিগে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ক্লিন শিট অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের গোলকিপার জ্যান ওবলাকের (৩২ ম্যাচে ১৯টি ক্লিন শিট), বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখের ম্যানুয়েল নয়ারের (২৯ ম্যাচে ১৮টি ক্লিন শিট) ও সিরি আ তে জুভেন্টাসের জিয়ানলুইজি বুফনের (৩১ ম্যাচে ১৮টি ক্লিন শিট)।