ঘুম ভেঙেছে ফিলাইয়ের

টানা ৭ মাস ঘুমন্ত অবস্থায় থাকার পর অবশেষে জেগে উঠেছে কমেট ল্যান্ডার ফিলাই। এ তথ্য জানিয়েছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি। গত বছরের নভেম্বরে ধুমকেতুর উপরে অবতরণ করার পর যানটির সাথে পৃথিবীর এটিই প্রথম যোগাযোগ।

ফিলাই প্রথম স্পেসক্রাফট যেটি কোন ধুমকেতুর উপরে অবতরণ করলো। শনিবার এটি পৃথিবীতে সংকেত পাঠানো শুরু করে।

ClassTune

জার্মান এরোস্পেস সেন্টারের প্রোজেক্ট ম্যানেজার স্টেফেন উলামেক জানান, ‘আমরা মাত্র ৮৫ সেকেন্ড তথ্য সংগ্রহ করতে পেরেছি। যানটি তার অবতরণ সম্পর্কে তথ্য পাঠিয়েছে’। ফিলাই খুব ভালোভাবেই তার কাজ করছে বলে তিনি জানান।

১০ বছর ভ্রমণের পর মাদারশিপ রোসেটা থেকে আলাদা হয়ে যায় এই স্পেসক্রাফট। নভেম্বর মাস থেকে 67P/Churyumov-Gerasimenko নামক একটি ধুমকেতুকে প্রদক্ষিণ করতে থাকে।

১০০ কেজি ওজনের এই যন্ত্রটি সফলভাবেই অবতরণ করলেও নিজেকে পৃষ্ঠের সাথে ভালোভাবে আটকাতে পারেনি। আরেকটি ব্যাপার হচ্ছে, ফিলাই যেখানে অবতরণ করেছে সে জায়গাটাতে আলো পৌঁছায় না। ফলে সৌরশক্তির অভাবে শক্তি হারিয়ে অকেজো হয়ে পড়তে পারে যন্ত্রটি।

ফিলাই ক্রমশ সূর্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বিজ্ঞানীরা আশা করছেন ফিলাই ধূমকেতুটি থেকে পাথর এবং বরফ সংগ্রহ করতে সক্ষম হবে। নতুন গবেষণা চালানোর জন্য ফিলাইকে নির্দেশ দেয়ার কোথাও চিন্তা করছেন তারা।

বর্তমানে কমেট-৬৭ সূর্য থেকে প্রায় ২১৫ মিলিয়ন কিলোমিটার এবং পৃথিবী থেকে ৩০৫ মিলিয়ন কিলোমিটার দূরে রয়েছে। এটি সূর্যের সবচেয়ে কাছে পৌঁছাবে আগস্টের ১৩ তারিখ এবং তারপরই এটি দিক পরিবর্তন করে অন্যদিকে চলে যাবে। গবেষকরা বলছেন, এর মধ্যেই ফিলাই অক্টোবর মাস পর্যন্ত চলার মত যথেষ্ট আলো পেয়ে যাবে।