তুষারপাত

Snowfall
ছবি : সংগৃহীত

তুষারপাত দেখতে কার না ভালো লাগে ? অনেকে শখ করে তুষার পাত উপভোগও করেন। কিন্তু তুষার পাত কেন হয় ?

সূর্যের তাপে সাগর, নদী, পুকুরসহ সব জলাশয় থেকে পানি বাষ্প হয়ে উপরে উঠে । এর মূল কারণ, জলীয় বাষ্প বাতাসের চেয়ে হালকা। এই হালকা জলীয় বাষ্পই একসময় রূপ নেয় মেঘে।

আমরা জানি , বায়ুমণ্ডরের যত ওপরে ওঠা যায় তাপমাত্রাও তত কমতে থাকে। তাপমাত্রা কমে যায় বলে বাতাসে জলীয় বাষ্পের ধারণ ক্ষমতা কমতে থাকে।

এই জলীয় বাষ্প বাতাসের ধূলিকণার সাথে মিশে আস্তে আস্তে ঘনীভূত হয়। তাপমাত্রা আরও কমতে থাকলে তা পরিণত হয় তুষার কণায়। একসময় বাতাস তাদের আর ধরে রাখতে পারে না। তখন তুষার কণাগুলো ঝরে পড়ে পাহাড় ও মাটিতে।

বায়ুমণ্ডলে উৎপন্ন তুষারের পরিমাণ অনেক বেশি জমলেও তা পাহাড় পর্বতে ঝরে পড়ে অনেক কম হারে। বাকিগুলো ঝরে পড়ে বৃষ্টি আকারে।

তুষার কণাগুলো যখন অপেক্ষাকৃত উষ্ণ অঞ্চল দিয়ে প্রবাহিত হয় তখন তা গলে বৃষ্টিতে রূপ নেয় এবং মাটিতে ঝরে পড়ে। তবে পর্বতের উপরের তাপমাত্রা কম থাকায় সেগুলো জমে বরফ হয়ে থাকে।

আমাদের দেশে সূর্যের আলো সবসময় মোটামুটি খাড়াভাবে পড়ে। এজন্য তাপমাত্রা কখনোই এত নিচে নামে না অর্থাৎ বাংলাদেশে তাপমাত্রা কখনোই শূণ্যের নিচে নামে না যে বরফ বা তুষার তৈরী হতে পারে। এজন্য তুষারপাতও হয় না ।