তোড়ায় বাঁধা ডিম্ব সমাচার

আচ্ছা ঘোড়া যে ডিম পাড়ে না এ কথােতা সবাই জানো কিন্তু প্রাণী জগতের বাদবাকি যারা ডিম পাড়ছে তাদের কথা কে কতোটুকু জানো? চলো আজ আমরা জেনে নেই ডিম পাড়া সেইসব প্রাণী-পতঙ্গদের কথা।

তোমরা অনেকেই নিশ্চয়ই গানের পাখি কোকিেলর নাম শুনেছো। ওই যে কালো রঙের পাখিটা। যে কিনা গাছের সবচেয়ে উঁচু ডালে বসে কুহুকুহু স্বরে গান গায়।

সেই কোকিল কী করে জানো? কোকিল পাখি ডিম পাড়ে কাকের বাসায়। যাতে কাক নিজের ডিম ভেবে তা দিয়ে বাচ্চা ফুটিয়ে বের করে।

কিছু কিছু পোকামাকড়ের মাঝেও রয়েছে এমন স্বভাব। স্টেলিস, মেলেক্টাসহ আরও কিছু মৌমাছি আছে, যারা অন্য মাছির বাসায় ডিম পাড়ে।

দক্ষিণ ইউরোপের বিভিন্ন অঞ্চলে সিটারিস নামে এক ধরনের পোকা দেখা যায়, যেগুলো মৌমাছির চাকের সামনে ডিম পেড়ে রাখে।

এ ডিম থেকে বের হওয়া সিটারিসের শূককীট মৌমাছি যখন চাকে ঢুকে, তখন তাদের গায়ে আটকে যায়। মৌমাছির সঙ্গেই শূককীটগুলো ঢুকে পড়ে মৌচাকে। শূককীটগুলো শুধু মৌচাকের মধুই খায় না, আশ্রয়দাতা মৌমাছিগুলোর ডিমও খেয়ে ফেলে।

সমুদ্রে বাস করে রোডিয়াস নামের এক অদ্ভুত মাছ। মাছটি কায়দা করে ঝিনুকের খোলে ঢেলে ডিম পেড়ে দিয়েই খালাস! ডিম ফুটে পোনা বের হয় ঝিনুকের খোল থেকে।

একই ডিম থেকে অসংখ্য বাচ্চা বের হওয়া পতঙ্গও রয়েছে পৃথিবীতে। হেলিক্টোজেনস, এজেনিয়াসপিসসহ আরও কিছু পোকা আছে, যেগুলোর একটি ডিম থেকে বের হয় অসংখ্য বাচ্চা। কোনো কোনো চ্যাপ্টা কৃমির ডিম থেকেও একই ঘটনা ঘটে।

বেশিরভাগ পাখির ডিম প্রায় একই ধরনের অর্থাৎ হাঁস-মুরগির ডিমের মতোই একদিকে চওড়া এবং আরেক দিকে সরু। তবে পেঁচা আর দক্ষিণ আমেরিকার টেকিন পাখির ডিম গোলাকার। আবার সামুদ্রিক পাখি আউক ও গিলিমটের ডিম দেখতে অনেকটা নাশপাতির মতো।

ডিম পাড়ার রেকর্ডও একেক প্রাণীর একেক রকম। যেমন কাক। প্রাণীটি ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে চার থেকে পাঁচটি ডিম পাড়ে। মেরুদণ্ডী প্রাণীর মধ্যে স্যামন মাছ একই সময়ে ডিম পাড়ে দুই কোটি আশি লাখ।

মেরুদণ্ডহীন প্রাণীর মধ্যে ওয়েস্টার নামের ঝিনুকটি একবারে ডিম দেয় এগারো কোটি চল্লিশ লাখ। মানবদেহে বসবাসকারী অ্যাসকারিস নামক গোলকৃমিও একদিনে ডিম পাড়ে সাত লাখ।

তবে পরিণত অ্যাসকারিস নিজ দেহে সাতাশ কোটি ডিম ধারণ করতে পারে। পরিচিত প্রাণীর মধ্যে কুমির গড়ে ডিম পাড়ে দশ থেকে পনেরোটি, সাপ কুড়ি থেকে পঁচিশটি, শামুক পঞ্চাশ থেকে আশিটি, কচ্ছপ পঞ্চাশ থেকে একশটি, উইপোকা আশি হাজারটি আর বাইন মাছ ডিম পাড়ে এক কোটির মতো!