ম্যালেরিয়ার ভয়াবহতা কমছে

1304

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) দাবী গত ১৫ বছরে ৬০ লাখ মানুষ ম্যালেরিয়ায় মারা যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। সেই সাথে বেশ কয়েকটি দেশ এই রোগ সম্পূর্ণভাবে দূর করার দ্বারপ্রান্তে রয়েছে।

ClassTune

বৃহস্পতিবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং ইউনিসেফ তাদের এক সম্মিলিত সভায় জানায়, ২০০০ সালের পর থেকে ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে ৬০ শতাংশ।

এদিকে এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার পরিমাণ কমেছে ২০ শতাংশ। ২০১৫ সালে ৪ লাখ ৩৮ হাজার মানুষ ম্যালেরিয়ায় মারা গিয়েছে। অথচ ১৫ বছর আগে এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৬ কোটি ২০ লাখ এবং মৃতের পরিমাণ ছিল ৮ লাখ ৪০ হাজার। এদের অধিকাংশই ছিল ৫ বছরের কম বয়সী।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর-জেনারেল মারগারেট চ্যান বলেন, ‘স্বাস্থ্য খাতে গত ১৫ বছরের মধ্যে এটি একটি অন্যতম সাফল্য’। ২০১৪ সালে ১৩টি দেশে কেউ ম্যালিরিয়ায় আক্রান্ত হয়নি এবং ৬টি দেশে ১০ জনেরও কম আক্রান্ত হয়েছে।

কিন্তু তারপরও স্ত্রী এনোফিলিস মশা দ্বারা সংক্রমিত এই রোগের ভয়াবহতা কিন্তু এখনো অগ্রাহ্য করা যাবেনা। এখনো ৩য় বিশ্বের দেশগুলোতে অসংখ্য মানুষ ম্যালেরিয়ার কারণে মারা যাচ্ছে।

ম্যালেরিয়া মোকাবেলায় এই সাফল্যের বেশিরভাগটাই এসেছে এশিয়া এবং ককেশাস অঞ্চলে। কিন্তু এ বছরও ম্যালেরিয়ায় মৃত মানুষের ৮০ শতাংশই ছিল সাব-সাহারার দেশগুলোতে। যেখানে সাড়া বিশ্ব থেকে এই রোগ বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে সেখানে আফ্রিকান দেশগুলোতে এখনো এই রোগে অসংখ্য মানুষ মৃত্যুবরণ করছে। এই দেশগুলোর দরিদ্র মানুষ এবং বিচ্ছিন্ন অঞ্চলে বসবাসকারীরাই ম্যালেরিয়ায় বেশি মারা যাচ্ছে।

২০০০ সালের পর থেকে আফ্রিকান দেশগুলোতে কমপক্ষে ১০০ কোটি কীটনাশক সমৃদ্ধ মশারি বিতরণ করা হয়েছে। সর্বশেষ জরীপ বলছে, এই অঞ্চলেই দুই-তৃতীয়াংশ শিশু এখন এই সুরক্ষার মাঝে ঘুমায়। এই মশারির কারণে গত ১৫ বছরে ৬৮ শতাংশ ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা হ্রাস পেয়েছে।

আগামী ১৫ বছরে ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার পরিমাণ ৯০ শতাংশ কমিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা হাতে নিয়ে জাতিসংঘ। ২০৩০ সাল পর্যন্ত এই প্রকল্পে ৯০০ কোটি মার্কিন ডলার বরাদ্দ রাখা হয়েছে।