বিশ্বকাপের ভেন্যু পরিচিতি : কালিনিনগ্রাদ স্টেডিয়াম

Kaliningrad Stadium
ছবি : সংগৃহীত

রাশিয়ার প্রসিদ্ধ অঞ্চল কালিনিনগ্রাদ শহরে অবস্থিত কালিনিনগ্রাদ স্টেডিয়াম অ্যারেনা বাল্টিকা নামেও পরিচিত। মূলত বিশ্বকাপ ফুটবলকে সামনে রেখে ২০১৬ সালে স্টেডিয়ামটি নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ২০১৮ সালের ২২ মার্চ স্টেডিয়ামটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

বিশ্বকাপের জন্য ৩৫ হাজার ২১২ জনের ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন স্টেডিয়ামটিতে মোট চারটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বকাপ শেষ হলে ধারণ ক্ষমতা কমিয়ে ২৫ হাজারে নামিয়ে আনা হবে। এজন্য ছাদের কিছু অংশ বাদ দেয়া হবে।

এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে ছোট এই স্টেডিয়ামটি নির্মাণে ২৫৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ হয়েছে। ভেন্যুটি পোল্যান্ডের সীমানা থেকে ৪৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। টু-টায়ার স্টেডিয়ামটিতে অত্যাধুনিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও সিসিটিভি রয়েছে। মূলত জার্মানীর আলিয়াঞ্জ এরিনা স্টেডিয়ামকে অনুসরণ করে এই স্টেডিয়ামটি তৈরি করা হয়েছে।

Kaliningrad Stadium 2
ছবি : সংগৃহীত

বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে মোট চারটি ম্যাচ হবে কালিনিনগ্রাদ স্টেডিয়ামে। ১৬ জুন ক্রোয়েশিয়া এবং নাইজেরিয়া, ২২ জুন সার্বিয়া ও সুইজারল্যান্ড, ২৫ জুন স্পেন ও মরক্কো এবং ২৮ জুন ইংল্যান্ড ও বেলজিয়ামের মধ্যে খেলা অনুষ্ঠিত হবে এই স্টেডিয়ামে।