অরিগামি না কিরিগামি?

অরিগামি(Origami)শব্দটি কেউ কখনো শুনেছো? না শুনে থাকলেও ক্ষতি নেই। এমনও হতে পারে নিজের অজান্তেই তুমি যুক্ত হয়ে গেছো অরিগামি নামক জাপানি ঐতিহ্যটির সঙ্গ। ভাবছো বাপরে, যে শব্দটি কখনো শুনিনি তার সঙ্গে আবার জুড়ে গেলাম কিভাবে? হাতের কাছে কাগজ পেয়েছ আর তা বিভিন্ন আকারে ভাঁজ করে কোনো কিছু বানানোর চেষ্টা করনি এমনটি নিশ্চয়ই কখনো হয়নি। স্কুলে ক্লাসের ফাঁকে খাতার একটি কাগজ ছিঁড়ে নৌকা বা প্লেন বানানোর কাজটা তো সবাই কমবেশি করেই থাকি।

আবার কাগজের ফুল বা বল বানিয়ে ক্লাসের বন্ধুদের প্রায়ই উপহারও দেই। জেনে রাখো তুমি কোনো কাটাকুটি আর আঠা ছাড়াই তোমার খাতার একটি কাগজ ভাঁজ করে জেট প্লেন বা নৌকা বানালে সেটাকেই বইয়ের ভাষায় বলা হয় অরিগামি। সোজা কথায় নানা রঙের কাগজ দিয়ে খেলনা বা সাজসজ্জার সামগ্রী তৈরি করার বিদ্যাই হলো অরিগামি।
অরিগামির শুরুটা হয়েছিলো জাপানে ১৭ শতকে। এরও প্রায় দুইশ বছর পর অর্থ্যাৎ ১৯শতকে এটি বিশ্বের আর অন্যান্য দেশেও ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হতে শুরু করে। অরিগামি শব্দটি এসেছে অরি থেকে যার অর্থ ভাঁজ করা আর গামি শব্দটা এসেছে কামি থেকে যার অর্থ কাগজ।

ClassTune

পরবর্তীতে কামি পরিবর্তিত হয়ে ‌গামি রূপ নিয়েছে। বর্তমানে অরিগামি একটি জনপ্রিয় শিল্প হিসেবে আমাদের দেশসহ অনেক দেশেই সমাদৃত হতে শুরু করেছে। খোঁজ নিয়ে দেখ তোমার ক্লাসেরই কোনো বন্ধু কাগজ দিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারে চমৎকার ফুল, পাখি, হাঁড়ি, কলস, হাতি, ঘোড়া, মাছসহ নানা কিছু। চাইলে তোমার অরিগামির প্রতি আগ্রহ দেখে মুহুর্তেই তার খাতার একটি কাগজ ছিড়ে সে তোমাকে আস্ত একটি হাতি বানিয়ে উপহার দিয়ে দিতে পারে।

তুমি হয়ত স্কুল শেষে আজকাল কম্পিউটার আর কোচিং নিয়েই ব্যস্ত থাকো। কিন্তু পড়াশোনার ফাঁকে তো একটু বিনোদনও দরকার তাই না। অরিগামিতে মজা পাবে তুমি। সাধারণ কাগজ, নিউজপেপার, র‌্যাপিং পেপার, কালার পেপারসহ সব ধরণের কাগজ দিয়েই অরিগামি করা যায়। সঙ্গে দরকার একটি কাঁচি [কাগজ সুবিধা মত কাটার জন্য। তবে কাঁচি ব্যবহারের জন্য অবশ্যই বাবা-মায়ের অনুমতি নিয়ে নেবে। আর কাগজ কাটার সময়টা খুব সাবধান। যে কোন মূূহুর্তে তোমার বিপদ ডেকে আনতে পারে কাঁচি। সবচেয়ে ভালো বুদ্ধি হচ্ছে বড়দের উপস্থিতিতে কাগজ কাটা অথবা কাগজ কাটায় বড়দের সাহায্য নেয়া]।

এই ফাঁকে একটি কথা বলে রাখি, কাগজ কেটে আঠা দিয়ে জোড়া দিয়ে অথবা সুই-সুতোয় সেলাই দিয়ে যদি কোনো খেলনা বা সাজসজ্জার সরঞ্জাম তুমি বানাও সেটাকে কিন্তু অরিগামি বলা হয় না। এটির আরেকটি নাম আছে। সেটা হলো কিরিগামি (Kirigami)। কাগজ না কেটে শুধুমাত্র ভাঁজ করে যদি তুমি কোনো কিছু বানিয়ে ফেলতে পারো তাকেই অরিগামি বলা হয় ।

আজকাল বাজারে অরিগামির উপর বিভিন্ন বই কিনতে পাওয়া যায়। চাইলে তুমি একটা বইও কিনে ফেলতে পারো। এছাড়া ইন্টারনেটে পাওয়া যায় অরিগামি বিষয়ে সবরকম প্রয়োজনীয় তথ্য। ইউটিউবে লগইন করে ভিডিওতে সরাসরি অরিগামি বানানোর কৌশল দেখতে পারো। তাতে খুব সহজেই অরিগামি শিখতে পারবে তুমি।

এছাড়া মোবাইলে অরিগামি শেখার অ্যাপসও পাওয়া যায়। সেটা থেকেও সহজেই শিখতে পারো অরিগামির নানা কলাকৌশল। পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় অরিগ্যামির নাম কি জানতে চাও? জেট প্লেন। যা কিনা ইতিমধ্যেই তুমি কতবার যে বানিয়েছো তার হিসাবটা হয়ত তোমার কাছেও নেই।