এবার আকাশে সৌর বিমান

গত সপ্তাহের সোমবার উড়োজাহাজ প্রযুক্তিতে এক নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। এদিন সকাল ৭:১২ মিনিটে আকাশে উড্ডয়ন করে ‘সোলার ইমপালস-২’ নামক পৃথিবীর প্রথম সৌরশক্তি চালিত উড়োজাহাজ।

ClassTune

জীবাশ্ম জ্বালানীর সাহায্য ছাড়াই পৃথিবী প্রদক্ষিণ করার লক্ষ্যে আবুধাবি থেকে ছেড়ে যায় এই উড়োজাহাজ। বিশ্বব্যাপী গ্রিন এনার্জির প্রসারণ বৃদ্ধির জন্যই এ যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

আবু বাতিন এক্সিকিউটিভ এয়ারপোর্ট থেকে সিঙ্গেল সিটের বিমানটি উড়িয়ে নিয়ে যান বৈমানিক আন্দ্রে বরসবার্গ। বিভিন্ন স্টপেজে কো-ফাউন্ডার বারট্রান্ড পিকার্ডের সাথে চালকের জায়গা বদল করবেন তিনি।

বিমানটিতে ১৭ হাজার সোলার সেল রয়েছে যেগুলো ১৭.৫ হর্সপাওয়ার ক্ষমতার ৪টি ইলেক্ট্রনিক মোটরকে শক্তি যোগাবে। পরিবেশ দূষনের জন্য দায়ী পুরাতন প্রযুক্তি বাদ দিয়ে নতুন পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তির সংযােজনই এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

সোলার ইমপালস ২ ঘণ্টায় ৩০-৬০ মাইল বেগে উড়তে পারে। উড্ডয়নের ১০ ঘণ্টা পর এটি ওমানের রাজধানী মাসকাটে অবতরণ করে। আগামী ৫ মাসে মোট ১২টি স্টপেজে নামবে সোলার ইমপালস-২। সব মিলিয়ে উড়বে মোট ২৫ দিন।

বিমানটি আরব সাগর পার হয়ে ভারতের উপর দিয়ে উড়ে যাবে। অবতরণ করবে মায়ানমার, চীন, হাওয়াই এবং নিউইয়র্কে। আবহাওয়ার উপর ভিত্তি করে যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ এবং উত্তর আফ্রিকার আরও কয়েকটি জায়গায় অবতরণ করবে এই বিশেষ বিমান।

ভ্রমন শেষে জুলাই নাগাদ আবারও ফিরে আসবে আবুধাবিতে।

একজন একাকী পাইলট প্রশান্ত মহাসাগরের উপর দিয়ে নানজিং, চীন এবং হাওয়াই হয়ে টানা পাঁচদিন ধরে টানা ৮ হাজার ৫ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করবে। এটিকে একটি বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে ধরছেন সবাই। তবে বিশ্রাম নেয়ার সময় অটোপাইলট ব্যবহার করবেন পাইলট।

সোলার ইমপালস ২ এর পাখার দৈর্ঘ্য ৭২ মিটার যা একটি জাম্বো জেটের চাইতে কিছুটা বেশি। ওজন ২.৩