এবার চীনে নিষিদ্ধ হলো প্রকাশ্যে ধূমপান

চীনের রাজধানী বেইজিঙে এবার থকে পাবলিক প্লেসগুলোর কোন অভ্যন্তরীণ জায়গায় আর ধূমপান করা যাবে না। নতুন করে এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে চীনা সরকার।

এই নিষেধাজ্ঞার ফলে পাবলিক প্লেসের রেস্টুরেন্ট, অফিস বা কোন পাবলিক ট্রান্সপোর্টে এখন থেকে আর ধূমপান করা যাবে না।

বিশ্বের সবচাইতে বেশি ধূমপান করা হয় চীনে। এখানকার প্রায় ৩০ কোটি মানুষ ধূমপান করেন। চীনের এই ধূমপায়ীদের মধ্যে অর্ধেকেরও বেশি প্রতি প্যাকেট সিগারেট এক ডলারেরও কম দামে ক্রয় করে থাকেন।

প্রতিদিন প্রায় ৩ হাজার মানুষ চীনে মারা যায় শুধুমাত্র ধূমপান সংক্রান্ত অসুখে।
ধূমপান-বিরোধী সংস্থাগুলো এই নতুন আইনকে স্বাগত জানিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই তারা এধরণের পদক্ষেপের জন্য আন্দোলন করে আসছিল। তবে নতুন এই আইন কতটুকু কার্যকরী হবে তা নিয়ে সন্দিহান তারা, কেননা আগের আইনগুলো খুব একটা সফলতা দেখাতে পারেনি।

যারা এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করবে, সেই সাথে কোন স্কুল বা হাসপাতালের কাছে ধূমপান করবে তাদের ২০০ ইয়ুয়ান পর্যন্ত জরিমানা করা হবে। তিনবার এই আইন ভঙ্গ করলে তার তার নাম একটি সরকারি ওয়েবসাইটে এক মাসের জন্য পোস্ট করা হবে। গত মাসে চীনের সংসদ গণমাধ্যম এবং জনসম্মুখে তামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপন নিষিদ্ধ করে একটি আইন পাশ করে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার টোব্যাকো ফ্রি ইনিশিয়েটিভ-এর এঞ্জেলা প্রেট বলেন, ‘আমরা বলছি না যে এটি বিশ্বের সবচাইতে কঠিন আইন। কিন্তু তারপরও এটি একটি শক্তিশালী আইন এবং এ আইনে ধূমপায়ীদের কোন ধরণের ধূমপানের সুযোগ দেয়া হচ্ছে না’।