ক্রোয়েশিয়ার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট

1767
kolinda grabar kitarovic

ক্রোয়েশিয়ার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হলেন কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান কলিন্ডা গ্রাবার-কিতারোভিক।

সোশ্যাল ডেমোক্রেট পার্টি এবং বর্তমান প্রেসিডেন্ট আইভো জসিপোভিককে পরাজিত করে দেশের সর্বোচ্চ পদে আসীন হন তিনি। গ্রাবার-কিতারোভিক ৫০.৫৪ শতাংশ ভোট পেয়েছেন যেখানে জসিপোভিক ৪৯.৪৬ শতাংশ।

ClassTune

৪৬ বছর বয়সী গ্রাবার-কিতারোভিক কনজারভেটিভ পার্টির পক্ষ থেকে বিগত ১৫ বছরের মধ্যে ক্রোয়েশিয়ার প্রথম রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে নির্বাচিত হলেন। মধ্য ইউরোপের এই দেশটি ১৯৯১ সালে যুগোস্লাভিয়া থেকে আলাদা হয়ে স্বাধীনতা লাভ করে।

গ্রাবার-কিতারোভিক এর আগে ক্রোয়েশিয়ার সরকারে ইউরোপ বিষয়ক মন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। ২০০৮ সালে তিনি ক্রোয়েশিয়ার রাষ্ট্রদূত হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে কর্মরত ছিলেন এবং তিনি ন্যাটোর সহকারী প্রধান হিসেবেও কাজ করেছেন।

ভোটের আগে গ্রাবার-কিতারোভিক বলেছিলেন যে তিনি এই নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী কেননা এই নির্বাচন হচ্ছে পরিবর্তনের নির্বাচন।

২০১৩ সালে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সদস্য হয় ক্রোয়েশিয়া। এ দেশটির ২০ শতাংশ মানুষ এখনো বেকার যা কিনা বিশ্বে অন্যতম সর্বোচ্চ। গ্রাবার-কিতারোভিক তাই দেশের অর্থনীতির উন্নয়নের উপর বেশি জোর দেবেন বলে ঘোষণা করেছেন।