দূষিত বায়ু থেকে তৈরি করা হবে রঙ

Air-Ink

ভারতভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘গ্রাভিকি ল্যাবস’ সম্পূর্ণ নতুন একটি ধারণা নিয়ে এসেছে। ‘এয়ার ইঙ্ক’ নামের এই ধারণায় তারা দূষিত বায়ু থেকে রঙ এবং কালি তৈরি করবে।

এই প্রতিষ্ঠান প্রথমে এয়ার ইঙ্ক পণ্য তৈরি করবে কলম, তৈলরঙ ও স্প্রে রঙ। কার্বনের ধোঁয়ার কালির গুড়া থেকে তৈরি করা রঞ্জক পদার্থ দিয়ে এসব পণ্য তৈরি করা হবে। সম্প্রতি তারা হংকঙয়ে এটি পরীক্ষা করেছে। অত্যন্ত দূষিত এই শহরের বায়ু থেকে কালি তৈরি করা হয়েছে যা দিয়ে স্থানীয় ৯ জন শিল্পী ম্যুরালচিত্র তৈরি করেছে।

ClassTune

এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা অনিরুদ্ধ শর্মার মাথা এসেছে এসেছে এই পণ্যের ধারণা। এক বন্ধুর সাথে কথা বলার সময় তিনি জানতে পারেন কিভাবে বায়ু দূষণ আমাদের পোশাকের উপর দাগ ফেলবে। এরপর থেকেই তিনি তার সহকর্মীদের নিয়ে এ ধারণা বাস্তবায়নে কাজ শুরু করেন। গত ৩ বছর ধরে তারা গবেষণা করেন কিভাবে এই কার্বনের ধোঁয়ার কালির গুড়াকে সংগ্রহ করে, পরিশোধন করে এবং পুনর্ব্যবহার করে তা থেকে ব্যবহারযোগ্য রঙ তৈরি করা যায়।

গাড়ির কালো ধোঁয়া ভারতের বায়ু দূষণের অন্যতম প্রধান কারণ। ২০১৪ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভারতের রাজধানী দিল্লীকে বিশ্বের সবচাইতে দূষিত বায়ুর শহর বলে চিহ্নিত করেছে। একারণেই দেশটির বায়ু দূষণ কমাতে এই উদ্ভাবনী ধারণার জন্ম দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন শর্মা।

প্রথমে গাড়ির যে পাইপ দিয়ে ধোঁয়া বের হয় সেখানে একটি সিলিন্ডার লাগিয়ে কার্বনের ধোঁয়ার কালি সংগ্রহ করা হয়। এরপর সেগুলো পরিশোধন করে ভারী ধাতু ও কারসিনোজেন (যে বস্তু থেকে ক্যান্সার সৃষ্টি হয়) দূর করা হয়। সেগুলোর সাথে বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্য মিশিয়ে কালি ও রঙ তৈরি করা হয়। একটি কলম তৈরি করতে একটি গাড়ির ৩০-৪০ মিনিটের কার্বন নিঃসরণের প্রয়োজন হয়।