বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজের অর্জনগুলো

টেস্ট সিরিজের যত রেকর্ড
ණ এটি বাংলাদেশের ৩য় সিরিজ জয়।

ණ এর মধ্যে দুবারই প্রতিপক্ষকে হোয়াইট ওয়াশ করেছে বাংলাদেশের টাইগাররা ।

টেস্ট সিরিজের যত রেকর্ড
ණ এটি বাংলাদেশের ৩য় সিরিজ জয়।

ණ এর মধ্যে দুবারই প্রতিপক্ষকে হোয়াইট ওয়াশ করেছে বাংলাদেশের টাইগাররা ।

ණ এই সিরিজেই প্রথম কোন দলকে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছে বাংলাদেশ ।

ණ এই সিরিজ জয়ে টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে ১০ থেকে ৯-এ উঠে এসেছে বাংলাদেশ।

ණ ঢাকা টেস্টে এক ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৯ রানে ৮ উইকেট নিয়ে নতুন রেকর্ড গড়েন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। যা বিশ্বের বাঁহাতি স্পিনারদের মধ্যে ৩য় সর্বোচ্চ ।

ණ খুলনা টেস্টে বিশ্বের তৃতীয় অলরাউন্ডার হিসেবে সাকিব আল হাসান এক টেস্টে সেঞ্চুরি ও দশ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন। এর আগে ইমরান খান ও ইয়ান বোথাম এই রেকর্ড গড়েছিলেন।

ණ এক টেস্ট সিরিজে ১৮টি উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের পক্ষে যৌথভাবে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় এনামুল হক জুনিয়রের সঙ্গী হলেন সাকিব আল হাসান ।

ණ টেস্টে ২০ ইনিংসের বেশি খেলা ব্যাটসম্যানদের গড় রানের হিসেবে স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের পরেই অবস্থান মুমিনুল হকের। মুমিনল ১২ টেস্টে ২৩ ইনিংসে ৬৩.০৫ গড়ে করেছেন ১১৯৮ রান। ব্র্যাডম্যানের গড় ৯৯.৯৪।

ණ এই সিরিজ শেষে আবারো টেস্ট অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান।

ওয়ানডে সিরিজের যত রেকর্ড

ණ এটি বাংলাদেশের ১৬তম সিরিজ জয়।

ණ এর মধ্যে ৯ বারই প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করেছে টাইগাররা ।

ණ শেষ ম্যাচে ওয়ানডে ক্রিকেটের ২ হাজার ২০৭ নম্বর ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক হয়েছিল তাইজুল ইসলামের। আর অভিষেকেই দেখিয়েছেন চমক। বিশ্বের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচে দেশের হয়ে ৪র্থ এবং ওয়ানডে ইতিহাসের ৩৬তম হ্যাটট্রিক করার অনন্য রেকর্ড গড়লেন এই বাঁ হাতি স্পিনার।

ණ ১৯৮৬ সাল থেকে দীর্ঘ ২৮ বছরে সকল ধরনের (টেস্ট, ওডিআই ও টি টুয়েন্টি) ক্রিকেট মিলে ওয়ানডে সিরিজের ২য় ম্যাচে জয়ের মধ্য দিয়ে ১০০ তম জয়ের মাইলফলক স্পর্শ করলো লাল সবুজের বাংলাদেশ। তবে সিরিজ শেষে সব ধরনের ফরম্যাট মিলিয়ে ৪২৩ ম্যাচে ১০৩ জয় এবং ৩০৪ টি পরাজয় ও ৫ টি ম্যাচ পরিত্যাক্ত।

ණ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চতুর্থ ম্যাচে জয়ের মধ্য দিয়ে দেশের মাটিতে ৫০তম একদিনের ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়েছে টাইগাররা। এখন পর্যন্ত ঘরের মাটিতে মোট ১৪০টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৫১ টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

ණ বাংলাদেশের জয় করা সর্বশেষ তিনটি ওয়ানডে সিরিজের তিনটিতেই সিরিজ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। এর ফলে সিরিজ সেরা হওয়ার অনন্য একটি হ্যাটট্রিক করলেন মুশফিক। অথচ পুরো ক্যারিয়ারে ম্যান অব দা ম্যাচ হয়েছেন মাত্র একবার! বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যান অব দা সিরিজ সাকিব ৫ বার । সবচেয়ে বেশি ম্যান অব দা ম্যাচও সাকিব ১৪ বার।

ණ সনাৎ জয়াসুরিয়া, স্টিভ ওয়াহ ও জ্যাক ক্যালিসের পর চতুর্থ ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে দেশের মাটিতে ২ হাজার রান ও ১০০ উইকেটের ‘ডাবল’-এর ক্লাবে নাম লিখিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।