ভারতীয় মহাকাশযান

1992

গত ১৮ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার ভারত সফলভাবে তাদের একটি মহাকাশযান উৎক্ষেপণ করেছে। ইতোপূর্বে বেশ কয়েকটি মহাকাশযান উৎক্ষেপণ করলেও এটিই ভারতের প্রথম মহাকাশযান যেটার সাথে একটি ক্যাপসুল যুক্ত করা আছে।

এই ক্যাপসুলে করে ভবিষ্যতে মহাকাশে মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনা করছে ভারত। এর মাধ্যমেই মহাকাশে মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনার সূচনা করলো দক্ষিণ এশীয় দেশটি।

উৎক্ষেপিত মহাকাশযানটিতে করে যোগাযোগ উপগ্রহসহ বেশ কয়েকটি উপগ্রহ পাঠানো হয়েছে।

Indian Space Research Organization (ISRO) এর প্রধান কে এস রাধাকৃষ্ণান জানান, ‘ভারতের মহাকাশ পরিকল্পনার ইতিহাসে এটি একটি তাৎপর্যমণ্ডিত দিন’।

রকেটটির অফিশিয়াল নাম হচ্ছে Geostationary Satellite Launch Vehicle GSLV Mk-III X/CARE। রকেটটি উৎক্ষেপণ করা হয়েছে ভারতের পূর্ব উপকূলের শ্রীহরিকোটা দ্বীপ থেকে। এটির ওজন ৬৩০ টন। আর সাথে যুক্ত করা ক্যাপসুলটির ওজন ৪ টন।

এই ক্যাপসুলে করে তিন জন মহাকাশচারীকে মহাশূন্যে পাঠানো যাবে। Crew Module Atmospheric Re-entry Experiment (CARE) নামধারী এ ক্যাপসুলটি সফলভাবে মূল রকেটের দেহ থেকে আলাদা হয়েছে এবং ভারতের পূর্বে বঙ্গোপসাগরে এসে পড়েছে।

ISRO এর বিজ্ঞানীরা আশা করছেন তারা আগামী সাত বছরের মধ্যেই মহাকাশে মানুষ পাঠাতে সক্ষম হবে। ২০১৭ সালের মধ্যে চাঁদে মানুষবিহীন একটি রোভার পাঠানোর পরিকল্পনাও করছেন তারা।

এক টুইটার বার্তায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ISRO কে তার অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এ বছরের সেপ্টেম্বরে মঙ্গলগ্রহে ভারত সফলভাবে একটি রোভার পাঠিয়েছে। এটির নাম দিয়েছে তারা মঙ্গলায়ন। দেশটির ৮০ মিলিয়ন ডলার খরচ হয়েছে এ মিশনটির পেছনে।

সূত্রঃ Deutsche Welle