শিশির

dew

 

শীতকালে ঘাসের উপর পানির বিন্দু কি দেখেছো তোমরা? শীতের রাতে টিনের চালে টপটপ করে পানির ফোঁটা পড়ার শব্দ শুনেছ তোমরা ? আসলে শীতের সময়ে শিশির পড়ার কারণে ঘাসের উপর পানির বিন্দু দেখা যায় বা টিনের চালে পানির ফোঁটা পড়ার শব্দ শুনা যায়। মনে অবশ্যই প্রশ্ন আসছে তোমাদের যে শিশির তাহলে কি? 

শিশির (Dew) হলো কোনো শীতল বস্তুর উপর জলীয় বাষ্প দিয়ে সৃষ্ট বিন্দু।

 

জলীয় বাষ্প হলো পানির বায়বীয় রূপ। প্রমাণ চাপে ১০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় পানি বাষ্পে পরিণত  হয়। আবার একইভাবে জলীয় বাষ্পের ঘনীভবনের ফলে তা পূর্বাবস্থায় অর্থাৎ তরল অবস্থায় রূপান্তরিত হয়।

 

 একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় বাতাস একটি নির্দিষ্ট সীমা পর্যন্ত জলীয় বাষ্প ধারন করতে পারে।    তাপমাত্রা বাড়লে যেমন ধারনক্ষমতা বৃদ্ধি পায়, তেমনি তাপমাত্রা কমলে ধারনক্ষমতা হ্রাস  পায়। সাধারণত সন্ধার পরে তাপমাত্রা কমে যায় এবং বাতাস জলীয় বাষ্প দ্বারা  সম্পৃক্ত (Saturated) হয়ে থাকে। যদি তাপমাত্রা আরো কমে যায়, তখন বাতাস আর  জলীয়  বাষ্প ধরে রাখতে পারে না এবং তা শীতল বস্তুর উপর পানির কণা হিসেবে জমা  হয়। এ  পানির বিন্দু শিশির বিন্দু নামে পরিচিত।

 

 

 

আচ্ছা তোমাকে বলা হলো ঢাকার আজকের তাপমাত্রা ১৯C (Degree Celsius) ও শিশিরাঙ্ক (Dew Point) ১০C। বলতে পারবে এই লাইন দিয়ে কি বুঝানো হচ্ছে? ঢাকার বাতাস ১৯C তাপমাত্রায় জলীয় বাস্পে অসম্পৃক্ত কিন্তু ১০C তাপমাত্রায় একই পরিমাণ জলীয় বাষ্প দ্বারা ঐ স্থানের বাতাস সম্পৃক্ত হয়। অর্থাৎ, ১০C তাপমাত্রায় বাতাস সর্বাধিক পরিমাণ জলীয় বাস্প ধারণ করতে পারে। ১০C এর নিচে অতিরিক্ত জলীয় বাষ্প ঘন হয়ে শিশিরে পরিণত হবে।