সাদা গণ্ডার: ৪ থেকে হলো ৩

1032

ওদের সংখ্যা ছিল চার। এবার তা নেমে এলো তিনে। গত রােববার যুক্তরাষ্ট্রের সান ডিয়েগো সাফারি পার্কে পৃথিবীর অবশিষ্ট ৪টি নর্দার্ণ হোয়াইট রাইনোর (সাদা গণ্ডার)একটি মারা গেছে।

অনেক বয়স হয়ে যাওয়ায় এবং ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের কারণে গণ্ডারটি মারা গিয়েছে বলে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

নোলা নামের ৪১ বছর বয়সী এই উত্তরাঞ্চলীয় সাদা গণ্ডারটিকে ১৯৮৯ সালে নিয়ে আসা হয় সাউদার্ণ ক্যালিফোর্নিয়া পার্কে। লক্ষ্য ছিল এর প্রজনন ঘটিয়ে এদের সংখ্যা বৃদ্ধি করা। কিন্তু সেটি সম্ভব হয়নি। নোলার জন্ম হয় সুদানে এবং ২ বছর বয়সে এটিকে ধরা হয়। চেক প্রজাতন্ত্রের একটি চিড়িয়াখানা থেকে নোলাকে সান ডিয়েগো আনা হয়েছিল।

গত সপ্তাহ থেকেই নোলার ক্ষুধা কমে যায়। হাঁটাচলা কমিয়ে দেয় সে। ১ হাজার ৮০০ কেজি ওজনের প্রাণীটি ধীরে ধীরে আরও অসুস্থ হয়ে পড়তে থাকে। যদিও চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ তাকে বাঁচিয়ে রাখতে চেষ্টার কোন কমতি করেনি।

বন্য পরিবেশ থেকে নর্দার্ণ হোয়াইট রাইনো বিলুপ্ত হয়ে গিয়েছে বলে ঘোষণা দেয়া হয় ২০০৮ সালে। মূলত এদের শিঙয়ের কারণে চোরশিকারিদের হাতে নির্বিচারে মারা পড়তে থাকে। ফলে হুমকির মুখে পড়ে এদের অস্তিত্ব।

নোলা ছিল উত্তর গোলার্ধে বাস করা তার প্রজাতির একমাত্র প্রাণী। বাকি তিনটি গণ্ডার রয়েছে কেনিয়ার ওল পেজেতা কনজারভেন্সিতে।

নোলা এমন সময় মারা গেল যখন ৬টি সাউদার্ণ হোয়াইট রাইনো আনা হয়েছে সান ডিয়েগো চিড়িয়াখানায়। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের ইচ্ছা ছিল এগুলোর সাথে নোলার প্রজনন ঘটিয়ে কোনভাবে নর্দার্ণ হোয়াইট রাইনোকে টিকিয়ে রাখা।

এদিকে সাউদার্ণ হোয়াইট রাইনোও রয়েছে বিলুপ্তির মুখে। বন্য পরিবেশে এদের সংখ্যা আর মাত্র ২০ হাজার বলে জানা গিয়েছে। শিকারিদের হাতে প্রতিদিন গড়ে তিনটি সাউদার্ণ হোয়াইট রাইনো মারা যায়।