সুপারম্যানের মেমোরি ক্রিস্টাল এখন বাস্তবে

2222
real_life_kryptonite
ছবি: সংগৃহীত

সুপারম্যান সিনেমার সেই স্মৃতি সংরক্ষক ক্রিস্টালের কথা মনে আছে? কল্পনার সেই ‘মেমোরি ক্রিস্টালের’ মতই একটা বস্তু বাস্তবে পরিণত হয়েছে এই পৃথিবীতে।

স্ফটিকের একটি স্বচ্ছ জিনিসের মধ্যে ডিজিটালভাবে তথ্য সংরক্ষণ করার উপায় আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছেন যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞানীরা।

এই তথ্য সংরক্ষণ পদ্ধতি এতোটাই দৃঢ় এবং নিরাপদ যে এখানে তথ্য প্রায় ১হাজার ৪০০ বছর ধরে সংরক্ষিত থাকবে, জানিয়েছেন ইউনিভার্সিটি অফ সাউদাম্পটনের বিজ্ঞানীরা। যে কোনো কম্পিউটার হার্ডড্রাইভের চাইতে এটির সংরক্ষন সময় ক্ষমতা অনেক বেশি।

ইতোমধ্যেই এই গোলাকৃতি স্বচ্ছ স্ফটিকের চাকতিতে ইউনিভার্সাল ডিক্লেয়ারেশন অফ হিউম্যান রাইটস এবং বাইবেলের মত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংরক্ষণ করা হয়েছে।

প্রতিটি চাকতি ৩৬০ টেরাবাইট বা ৩ লাখ ৬০ হাজার গিগাবাইট তথ্য সংরক্ষণ করার ক্ষমতা রাখে। ১০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায়ও নষ্ট হবে না এই চাকতি।

তবে জাদুকরী এই ডিভাইসের তথ্য খালি চোখে দেখা যাবে না। গলিত কোয়ার্টজের ভেতরে ন্যানোস্ট্রাকচার নামে বাস্তবধর্মী লেজার দিয়ে এই তথ্য প্রবেশ করানো হয়। আর এ ধরণের গঠনের ফলে এই স্ফটিকের ভেতর দিয়ে আলোর প্রবেশে পরিবর্তন ঘটে তাই বিশেষ ধরণের দেখার যন্ত্র দিয়ে এই তথ্য দেখা যাবে।

ত্রিমাত্রিক বা চতুর্মাত্রিক নয়, বিজ্ঞানীরা বলছেন ৫টি মাত্রায় এখানে তথ্য সংরক্ষণ করা হবে। এগুলো হচ্ছে- উচ্চতা, দৈর্ঘ্য, প্রস্থ, পরিস্থিতি এবং অবস্থান।

অসাধারণ এই ডিভাইসটিকে আরও উন্নত ও বাণিজ্যিকীকরণে সাউদাম্পটের বিজ্ঞানীরা শিল্প উদ্যোক্তার খোঁজ করছেন।