ওবামার আলাস্কা ভ্রমণ

1409
Obama Alaska trip
ছবি : সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে আর্কটিক সার্কেল বা উত্তর মেরুঅঞ্চলীয় এলাকা ভ্রমণ করলেন বারাক ওবামা। বৈশ্বিক উষ্ণতার কারণে আলাস্কার বিভিন্ন বিচ্ছিন্ন গ্রামে বসবাসকারী অধিবাসীরা যেসব হুমকির মুখে পড়তে যাচ্ছে সেসব জিনিস আরও কাছ থেকে দেখতে গিয়েছিলেন তিনি।

বুধবার আলাস্কা অঞ্চলের কৎজাবুতে (৩ হাজার বসবাসকারীর একটি শহর) তিনি সামগ্রিক পরিস্থিতি দেখতে যান। সেখানে তিনি বলেন, গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণের ফলে পৃথিবী উত্তপ্ত হওয়া শুরু করেছে এবং ইউএসএ এক্ষেত্রে এখনো প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

প্রায় ১ হাজার মানুষের উপস্থিতিতে তিনি আরও বলেন, বৈশ্বিক উষ্ণনায়নের ক্ষতিকর প্রভাবের মুখে পৃথিবী খুব শীগগিরই পড়তে যাচ্ছে। কিন্তু আপনারা ইতোমধ্যেই সেটা উপলদ্ধি করছেন।

ওবামা কৎজাবুতে পৌঁছার পরপরই সেখানে বৈরি আবহাওয়ার কবলে পড়েন। তিনি জানান, এ অঞ্চলের আবহাওয়া এবং পরিবেশগত উন্নয়নের জন্য আরও বড় পদক্ষেপ নেয়া অত্যন্ত জরুরী।

কৎজাবুর পর ওবামা তার এয়ার ফোর্স ওয়ানের বিশেষ বিমান নিয়ে উড়ে যান জেলে গ্রাম ডিলিংহামের উপর। তারপর কাছ থেকে দেখেন ৪০০ মানুষের আবাসস্থল কিভালিনা গ্রাম। এই গ্রাম পানির নিচে তলিয়ে যাচ্ছে বলে তারা নিজেদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারের কাছে আবেদন করেছেন।

আলাস্কার কর্মকর্তারা জানান, গত ৫০ বছরে দেশের সরকারি অর্থভাণ্ডার থেকে ২ বিলিয়নেরও বেশি অর্থ ব্যয় করা হয়েছে আলাস্কার আঞ্চলিক উন্নয়নের পেছনে। কিন্তু তারপরও এই অঞ্চল এখনো ব্যাপকভাবে পিছিয়ে আছে। তাপমাত্রা বৃদ্ধির পাশাপাশি দারিদ্র্যতা এবং অবকাঠামোগত অনুন্নয়নও এর জন্য দায়ী।

আলাস্কার তাপমাত্রা পৃথিবীর অন্য যেকোনো অঞ্চল থেকে দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে আলাস্কার নিকটবর্তী মাটির নিচে জমে থাকা বরফ গলে গিয়ে মাটি ক্ষয় করছে এবং এর কারণে সেখানকার বাড়িঘর, রাস্তাঘাট ক্ষতির মুখে রয়েছে। আলাস্কার প্রায় ১ লাখ বাসিন্দা এই হুমকির মধ্যে বাস করছে।