অভিভাবকদের নজরদারি ছাড়া ইন্টারনেট ব্যবহারে ঝুঁকি বেশি

Talk-with-kids

কিশোর-কিশোরী যারা দিনে দুই ঘন্টার বেশি অভিভাবকের নজরদারি ছাড়া সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে তাদের সাইবার বুলিং-এর শিকার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

স্কুল পড়ুয়া কিশোর-কিশোরী যারা দিনে দুই ঘন্টার বেশি অভিভাবকের নজরদারি ছাড়া সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে তাদের সাইবার বুলিং-এর শিকার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে, ইউকে-তে বিএমসি পাবলিক হেলথ নামক গবেষণাপত্রে একথা জানানো হয়েছে। না বুঝে তারা ব্যক্তিগত তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করার ফলে অপরিচিত ব্যক্তির হাতে সে সব তথ্য পড়ে এবং সেই সব তথ্যের ফলে ওই কিশোর-কিশোরীদের সাইবার বুলিং-এর শিকার হতে হয়।

ClassTune

গবেষণার ফলাফল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সরবরাহ করেছে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। পূর্বে গবেষকদের ধারণা ছিল, অত্যাধিক পরিমাণে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ফলে মানুষকে সাইবার বুলিং-এর শিকার হতে হয়।

জার্মানি, গ্রিস, আইসল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, পোল্যান্ড, রোমানিয়া এবং স্পেনের বিভিন্ন স্কুলে এই সমীক্ষা চালানো হয়। ১৪-১৭ বছর বয়সের ১২,৩৭২ জন ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে এই সমীক্ষা করা হয়, যেখানে তাদের বিভিন্ন সামাজিক বিষয়, পরিস্থিতি এবং সাইবার বুলিং-এর মত বিষয় সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়।

গবেষকরা জানতে পেরেছেন, রোমানিয়ায় ৩৭.৩%, গ্রিসে ২৬.৮%, জার্মানিতে ২৪.৩%, পোল্যান্ডে ২১.৫% কিশোর-কিশোরী সাইবার বুলিং-এর শিকার হয়েছে। তবে সাইবার বুলিং-এর পরিমাণ নেদারল্যান্ডে ১৫.৫% এবং আইসল্যান্ডে ১৩.৫% ও স্পেনে কিছুটা কম।