ক্রিকেট ম্যাচ শো’র আদ্যোপান্ত

tigers_historic_victory
ছবি : সংগৃহীত

গত কয়েক বছর ধরে ক্রিকেট খেলায় একটা ব্যাপারের প্রচলন খুব বেড়েছে। সিরিজ বা টুর্ণামেন্ট শুরুর আগে কিংবা কোন ম্যাচের আগে দেখা যায় একদল আলোচক ম্যাচ নিয়ে খুব গবেষণা করে। এছাড়া, ম্যাচের তারকা ব্যাটসম্যান বা বোলারদের নিয়েও আলোচকরা কথা বলে থাকেন। অর্থাৎ, সেই তারকা ব্যাটসম্যান কিভাবে খেলে, কোন লেংথে বল ভালো খেলে, কোন বল খারাপ খেলে, ব্যাটসম্যানের স্ট্রং জোন, উইক জোন আরও অনেক কিছু নিয়ে বিশ্লেষণ করে তারা। ম্যাচ নিয়ে এই গবেষণা বা বিশ্লেষণ যে শুধুমাত্র টিভিতে দেখানো হয় তা কিন্তু নয়, বিভিন্ন ওয়েবসাইটেও এর নমুনা দেখতে পাওয়া যায়। বিশেষ করে Espn Cricinfo এর নাম আগেই চলে আসে।

যে মূল বিষয়গুলো নিয়ে প্রি-ম্যাচ শো গুলো হয়, তা হলোঃ

মাঠের কন্ডিশনঃ সেদিনের খেলার পিচ কি রকম হবে, টসে জিতলে ব্যাটিং নাকি বোলিং নেয়া ভালো হবে এগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। পাশাপাশি দিবা রাত্রির ম্যাচে রাতের বেলা কুয়াশা পড়ার সম্ভাবনা কতটুকু, সে অনুপাতে ব্যাটিং করা কতটুকু কঠিন হবে ইত্যাদি নিয়ে এ অংশে আলোচনা করা হয়।

টিম ম্যানেজমেন্টঃ পিচ এবং কন্ডিশনের সাথে তাল মিলিয়ে দুই দলের সম্ভাব্য মূল একাদশ বাছাই করা প্রি-ম্যাচ শো এর প্রধান অংশ।

পরিসংখ্যানঃ যেকোনো খেলায় হেড টু হেড পরিসংখ্যান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সরাসরি কোনো প্রয়োগ না থাকলেও, যেকোনো এক পক্ষকে মনস্তাত্বিকভাবে অনেকটাই এগিয়ে দেয় এই পরিসংখ্যান।

ম্যাচ নিয়ে খেলোয়াড়ের মতামতঃ যে ম্যাচটি হতে যাচ্ছে সেই ম্যাচ নিয়ে দুই দলের এক-দুইজন খেলোয়াড়ের মতামত নেয়া হয় কিংবা তারা এই ম্যাচ নিয়ে কি ভাবছে তা তুলে ধরা হয় এখানে। এছাড়া, ম্যাচের আগের দিন ম্যাচ নিয়ে প্রেস বা সাংবাদিক সম্মেলনে দুই দলের অধিনায়কের অভিমত দেখানো হয় এখানে। 

প্রতিটি খেলোয়াড়ের যাচাইঃ প্রতিপক্ষ দলের প্রত্যেকটি খেলোয়াড়ের আদ্যোপান্ত বিশ্লেষণের মাধ্যমে তাদের দুর্বলতা বুঝে উঠা সম্ভব এভাবে। আর দুই দলেরই বিশেষ খেলোয়াড়দের হাইলাইট করে দেখানো হয় এ পর্বে। Pitch Map এর মাধ্যমে একজন ব্যাটসম্যান বা বোলার নিয়ে বিস্তর বিশ্লেষণ করা হয়।

তারকা খেলোয়াড়দের চুলচেরা বিশ্লেশনঃ দুই দলের তারকা খেলোয়াড়দের ব্যাটিং ও বোলিং দক্ষতা দেখানো হয় এই অংশে। কোথায় বল করলে ব্যাটসম্যানের সুবিধা হবে, কোথায় করলে অসুবিধা হবে, কোন ব্যাটসম্যানের দুর্বলতা কোন ধরণের বলে- এসব কিছু সুন্দর করে ব্যাখ্যা করা হয় প্রতিটি প্রি-ম্যাচ অনুষ্ঠানে। আগের খেলার ভিডিও দেখে দেখে খুব সূক্ষ্মভাবে পরিচালনা করা হয় এই অংশটি।

এসবের পর টস করার মাধ্যমে খেলা শুরু হয়। খেলার অবস্থা পর্যবেক্ষনে মধ্যবিরতিতে আরেকদফা বিশ্লেষণ চলে। তখন মূলত বিশ্লেষণ করা হয় প্রথম ইনিংস নিয়ে। বলা যেতে পারে প্রথম ইনিংসের হাইলাইটস ! এছাড়া, কোন ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি বা হাফ সেঞ্চুরি করলে তার স্কোরিং শট দেখানো হয়। এমনকি প্রথম ইনিংসে বোলাররা কিভাবে উইকেট পেয়েছে তাও দেখানো হয় ইনিংস বিরতিতে। খেলা শেষে পুরো ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে আরেকদফা বিশ্লেষণ হয়। এই বিশ্লেষণে যে খেলোয়াড় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়েছে তার পারফরমান্স মূল্যায়ন করা হয়। এমনকি প্রত্যেক ম্যাচে কিছু টার্নিং পয়েন্ট থাকে তা ম্যাচ শেষের এই ভিডিও বিশ্লেষণে ফুটে ওঠে। বলা যেতে পারে, এই ম্যাচ শো পুরো খেলার একটা প্রতিচ্ছবি বা প্রতিবিম্ব।