রোমাঞ্চকর খেলার ভুবনেঃ Bungee Jumping

bungee-jumping

মানুষের শখ সীমাহীন। রঙ বেরঙের শখ, স্বপ্ন থাকে মানুষের। দেশ বিদেশ ঘুরে বেড়ানো বা রোমাঞ্চকর কিছু করা এগুলো মানুষের পছন্দের তালিকায় উপরের দিকে থাকে। এমনই একটি রোমাঞ্চকর খেলা হচ্ছে Bungee Jumping

একটি প্রসারণক্ষম রশির এক মাথা পায়ের গোড়ালীতে, অন্য মাথা উঁচু শক্ত কিছুতে লাগিয়ে উঁচু থেকে লাফ দেওয়া হয় যাতে রশিটি পুরোপুরি প্রসারিত হবার পরও নিচে কোন কিছুতে শরীর না লাগে। এই লাফ দেওয়াকেই বাঞ্জি জাম্প বলে। লাফ দেবার পর থেকে পুরোপুরি ঝুলে পড়া পর্যন্ত সময়টাতে অদ্ভুত অনুভূতির সৃষ্টি হয়।

ClassTune

১৯৮৬ সালে অকল্যান্ড গ্রীনহাইট ব্রীজ থেকে জাম্প করে বাণিজ্যিকভাবে এই রোমাঞ্চকর খেলার সূচনা করেন নিউজিল্যান্ডের এ. জে. হ্যাকেট। পরবর্তীতে বিভিন্ন ব্রিজ ও স্থাপনা (এমনকি আইফেল টাওয়ার) থেকে তার বাণিজ্যিক বাঞ্জি জাম্প মানুষের আগ্রহকে বাড়িয়ে তোলে। তবে এ. জে. হ্যাকেটের আগে ১৯৭৯ সালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেঞ্জারাস স্পোটর্স ক্লাবের চার সদস্য ব্রিস্টল ব্রিজ থেকে Bungee Jumping এর জন্য লাফ দিয়েছিলো, কিন্তু তারা সফল হতে পারেনি।

bungee-jumping-2

অ্যাডভেঞ্চার ধাঁচের এই খেলার মূল উপকরণ হিসেবে থাকে প্রসারণক্ষম কর্ড বা রশি, এঙ্কেল হার্নেস বা বডি হার্নেস, স্পেশাল স্যুট, গগলস ও জাম্পিং প্লাটফর্ম। Bungee Jumping এ লাফ দেওয়ার ধরণ ভিন্ন হয়ে থাকে। জাম্পিং প্লাটফর্মে দাঁড়ানোর পর গতানুগতিকভাবে কোন ব্যক্তি লাফ দেয় না। হয় কোন একজন এসে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বা কখনো কখনো দড়ি কেটে নিচে ঠেলে দেয়া হয়। বিভিন্ন এক্রোব্যাট স্টাইলে লাফ দিয়ে থাকে একেকজন ব্যক্তি।

হলিউডে এই Bungee Jumping এর প্রচলন অনেক বেশি। অনেক চলচ্চিত্রে এই Bungee Jumping এর ব্যবহার দেখা যায়। ১৯৯৫ সালে জেমস বন্ড সিরিজের Golden Eye মুভিতে সর্বপ্রথম Bungee Jumping এর প্রয়োগ দেখা যায়।

বানিজ্যিকভাবে বাঞ্জি জাম্পের জন্য পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু স্পট হচ্ছে চীনের ম্যাকাও টাওয়ার, যার উচ্চতা ৭৬৪ ফুট (২৩৩ মিটার) এবং দ্বিতীয় হচ্ছে দক্ষিন আফ্রিকার ব্লোক্রান ব্রিজ, যার উচ্চতা ২১৬ মিটার।

বাঞ্জি জাম্প নিরাপদ রোমাঞ্চকর খেলা হলেও এর মধ্যে অনেক সময় দুর্ঘটনা ঘটে। যার বেশির ভাগই মানব সৃষ্ট। ঠিকমত হার্নেস না পড়া, বাঞ্জি কর্ডের প্রসারণক্ষমতা নিয়মিত পরীক্ষা না করা,  প্লাটফর্মে ঠিকমত রশি না বাঁধা,  কর্ডের দৈর্ঘ্য প্লাটফর্মের উচ্চতার মধ্যেকার পার্থক্য ঠিকমত পরিমাপ না করা প্রভৃতি কারণে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এছাড়া, যে কারণে দুর্ঘটনা বেশি ঘটে তা মূলত যে ব্যক্তি লাফ দিয়ে থাকে তাঁর শারীরিক অক্ষমতার জন্য যেমনঃ প্রচন্ড বাতাসের বেগ সহ্য করার অক্ষমতার জন্য চোখের ক্ষতি এবং মেরুদন্ডে আঘাত। হৃদপিণ্ডের দুর্বলতাও বাঞ্জি জাম্পের সময় দুর্ঘটনা ঘটাতে পারে। এছাড়া, যাদের উচ্চতাভীতি বা Acrophobia রয়েছে তাদের জন্যে এটি খুবই বিপজ্জনক হতে পারে। তাই, Bungee Jumping এর জন্যে সবাইকে অনুমতি দেয়া হয় না। যেমন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১২০ কেজির বেশি মানুষদের জন্যে Bungee Jumping নিষিদ্ধ। তবে কেউ চাইলে অতিরিক্ত চার্জ এবং বীমা করে Bungee Jumping এ অংশ নিতে পারে।